দেড়লাখ টাকায় বাবা ও সৎ মাকে খুন করানো হয়

 

স্টাফ রিপোর্টার:নারায়ণগঞ্জেরফতুল্লায় জমি লিখে না দেয়ায় বাবা ও সৎ মাকে ভাড়াটিয়া খুনি দিয়ে হত্যা করারকথা স্বীকার করেছে নিহতের মেয়ে হাবিবা (২৪)। গতকালমঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জসিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মনোয়ারা বেগম এর আদালতে ১৬৪ ধারায় হাবিবাদোষ স্বীকার করেছে।আদালতে হাবিবার জবানবন্দির বরাত দিয়ে মামলারতদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আতাউর রহমান জানান, ছেলে-মেয়ে ও প্রথমস্ত্রীকে জমি লিখে না দেয়ায় ভাড়াটিয়া খুনি দিয়ে ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ ওতার দ্বিতীয় স্ত্রী হোসনে আরাকে খুন করানো হয়েছে। ঘটনার ১৫দিন আগে আমানউল্লাহর প্রথম স্ত্রী রাজিয়া বেগম, ছেলে আরিফ ও বড় মেয়ে হাবিবা খুন করারপরিকল্পনা করে। সেমতে ছেলে আরিফ তার তিন বন্ধুকে দেড় লাখ টাকায় ভাড়া করে।ঘটনার রাতে মেয়ে হাবিবা সরবতের সাথে গুমের ওষুধ মিলিয়ে বাবা ও সৎ মা হোসনেআরাকে খাইয়ে দেয়।এরপর আমান উল্লাহর ছেলে আরিফ তার তিন বন্ধুকে নিয়ে রাত৩টার দিকে বাসায় আসে। এসময় হাবিবাকে ডাকলে সে বাসার গেইট ও দরজা খুলে দেয়।এসময় তারা ঘরে প্রবেশ করে আমান উল্লাহ ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী হোসনে আরাকেকুপিয়ে খুন করে চলে যায়। এরপর হাবিবা চিৎকার করে আশপাশের লোকজন জুড়ো করে।তদন্তের স্বার্থে ভাড়াটিয়া খুনিদের নাম প্রকাশ করেনি তদন্তকারী কর্মকর্তা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *