দেশে পূর্ণ আইনের শাসন নেই

 

স্টাফ রিপোর্টার: প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা বলেছেন, বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতির কথা বেশি বলতে হয়। কারণ এ দেশে এখনও পূর্ণ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা পায়নি। গতকাল রোববার বেলা ১১টায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ভূমি আইন ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের উদ্বোধন ও নবীনবরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, অন্যান্য দেশে প্রধান বিচারপতিরা এত কথা বলেন না, কারণ সে সব দেশে আইনের শাসন রয়েছে। কিন্তু আমাকে বলতে হয়, আমার কথা বেশি বলতে হয়, কারণ এখনও এ দেশে পূর্ণ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা পায়নি। ‘সংবিধান ও আইনের প্রতি আঘাতহানে এমন যে কোনো সংশোধনী অবৈধ’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সংবিধান, জনগণ ও আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কোনো আইন বাংলাদেশে হতে দেয়া হবে না। আমরা তা প্রতিহত করব।’

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আমরা ততদিন সভ্য হব না, যতোদিন না আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হব। দেশে এখনও যদি কোনো রায় বড় পর্যায়ের কারো বিরুদ্ধে যায়, তাহলে তারা যাচ্ছে তাই মন্তব্য করেন, এতে আমরা কষ্ট পাই।’ তিনি বলেন, দেশে সবার জন্য সমান আইন হওয়া উচিত। জনগণের জন্য যে আইন প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি, প্রধান বিচারপতি- সবার জন্যই একই আইন থাকতে হবে। না হলে সরকারের ভিশন-২০২১ বা ২০৪১ বাস্তবায়ন কঠিন হয়ে পড়বে। নবীন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘দেশে জামিন ও ফৌজদারি মামলার সময় আইনজীবীরা কিলবিল করেন, অথচ ট্রায়ালের সময় কোনো আইনজীবী খুঁজে পাওয়া যায় না! দেশে ভূমি মামলা বুঝে এমন আইনজীবীর বড় অভাব, তোমরা সে অভাব পূরণ করবে বলে আমার বিশ্বাস।’ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের বিচারপতিরা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন শিক্ষা দিয়ে থাকেন- উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি বাংলাদেশের এ ধরনের শিক্ষার সংস্কৃতি তৈরির প্রতি আহ্বান জানান। পরবর্তীকালে একদিন জবিতে ভূমি আইন বিষয়ে একটি ক্লাস নিবেন বলেও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘আমাদের দেশ বিচার বিভাগের অধীনস্থ বিভাগসমূহে নানা সমস্যা রয়ে গেছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের লোকজন ভূমি সংক্রান্ত নানা আইনের অজ্ঞতার কারণে প্রতিনিয়ত প্রতিকূলতার সম্মুখীন হচ্ছে। তাই ভূমি আইন বিষয় শিক্ষা গ্রহণ করা জরুরি হয়ে পড়েছে। সামাজিক সমস্যা নিরসনের অন্যতম মাধ্যম হতে পারে এ বিষয়ে গবেষণা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *