দেশের টুকিটাকি : বিদ্যুত ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বিদ্যুত ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

স্টাফ রিপোর্টার: দেশের ৬টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন কার্যক্রম উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুত ব্যবহারে সবাইকে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল শনিবার গণভবনে বসে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ওই উপজেলাগুলোর পুরো এলাকায় বিদ্যুত সংযোগ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন তিনি। এছাড়া পায়রা সমুদ্র বন্দর, যাত্রাবাড়ি থেকে কাঁচপুর পর্যন্ত দেশের প্রথম আটলেন বিশিষ্ট মহাসড়ক, সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন এবং ধীরগতির যান চলাচলের জন্য যাত্রাবাড়ি থেকে মাওয়া ও পাঁচচর থেকে ভাঙা পযর্ন্ত পৃথক সার্ভিস লেনসহ চারলেন প্রকল্পের (পদ্মা সেতু সংযোগ সড়ক) আপগ্রেডেশন প্রকল্পের কাজও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন করেন প্রধানমন্ত্রী। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের সব মানুষের কাছে বিদ্যুত পৌঁছে দেয়া সরকারের লক্ষ্য অর্জনের অংশ হিসেবে ৬ উপজেলার শতভাগ মানুষ বিদ্যুত সংযোগের আওতায় এলো। পল্লি বিদ্যুতায়ন বোর্ডের অধীনে ৫৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে শতভাগ মানুষকে বিদ্যুত সুবিধা দেয়ার এ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। এর গ্রাহক সংখ্যা ২ লাখ ৩৮ হাজার ৫০ জন। শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় আসা উপজেলাগুলো হচ্ছে-গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া, নারায়ণগঞ্জের বন্দর, নরসিংদীর পলাশ, চট্টগ্রামের বোয়ালখালী, কুমিল্লার আদর্শ সদর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট। ৬ উপজেলার পুরো এলাকায় বিদ্যুত সংযোগ উদ্বোধন করে সবাইকে বিদ্যুত ব্যাবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দুই শিশু হত্যায় মা ৫ দিনের রিমান্ডে

স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর বাসাবোয় নিজ ঘরে দুই শিশু খুনের ঘটনায় মা তানজিন রহমানকে ৫ দিনের রিমান্ড আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল শনিবার বিকেলে সবুজবাগ থানা পুলিশ তানজিন রহমানকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড চায়। শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম নবির আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে ভোর ৪টার দিকে উত্তর বাসাবোর অন্য একটি বাড়ি থেকে তানজিন রহমানকে গ্রেফতার করা হয়। সবুজবাগ থানার ওসি মো. আবদুল কুদ্দুস ফকির জানান, মামলার পর উত্তর বাসাবোর একটি বাড়ি থেকে শিশুদের মা তানজিন রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে উত্তর বাসাবোর (হোল্ডিং নম্বর ১৫৭/২, ‘ষড়ঋতু’) বাড়ির সপ্তম তলা থেকে হুমায়রা বিনতে মাহবুব (৬) ও মাশরাফি ইবনে মাহবুব (৭) নামে দু ভাই-বোনের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনার পর থেকে তাদের মা তানজিন রহমান নিখোঁজ ছিলেন। পরে শুক্রবার রাতেই নিহত দুই শিশুর বাবা মাহবুবুর রহমান বাদী হয়ে দুই শিশুর মাকে আসামি করে সবুজবাগ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পুনর্ভবায় গোসল করতে নেমে ৩ ছাত্রের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার: দিনাজপুর সদর উপজেলায় পুনর্ভবা নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ তিন ছাত্রের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেলে শহরের উপকণ্ঠে কাঞ্চনব্রিজ এলাকা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে স্থানীয় ডুবুরিরা। এর আগে বেলা ২টার দিকে তারা পুনর্ভবা নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হয়। নিহতরা হলো- কোতোয়ালী থানার পাহাড়পুর এলাকার হাসানুল হক চৌধুরীর দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলে মেহেদী হাসান পলাশ (১৫), দিনাজপুর সিটি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র মাসুদ আবদুল্লাহ (১৭) ও জেলা স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র আবিদ বিন দুর্জয় (১৩)। স্থানীয়রা জানায়, শনিবার বেলা ২টার দিকে শহরের উপকণ্ঠে কাঞ্চনব্রিজ এলাকায় পুনর্ভবা নদীতে ৮-৯ জন গোছল করতে নামে। এ সময় স্রোতের টানে পলাশ, মাসুদ ও আবিদ নিখোঁজ হয়। এর পর হাজি পলাশের নেতৃত্বে কয়েকজন স্থানীয় ডুবুরি ২ ঘণ্টার চেষ্টায় তাদের লাশ উদ্ধার করে।

বাঁধন ছিঁড়ে ফের জলাশয়ে বঙ্গ বাহাদুর

স্টাফ রিপোর্টার: জামালপুরের সরিষাবাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া বঙ্গ বাহাদুর নামের বুনো হাতিটি শিকল ছিঁড়ে ছাড়া পেয়ে এলাকায় ফের তাণ্ডব চালাচ্ছে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার কামরাবাদ ইউনিয়নের কয়ড়া গ্রামে ওই হাতিটির সামনের পায়ের শিকল ছিঁড়ে যায়। এতে সে ছাড়া পেয়ে ওই এলাকার আবদুল সালামের বাড়ির আশপাশের এলাকায় তাণ্ডব চালায়। বর্তমানে হাতিটি ওই এলাকার জলাশয়ে অবস্থান করছে। এদিকে সকালে হাতিটি ফের ছুটে যাওয়ায় এলাকায় নতুন করে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। চেতনানাশক দিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে এটিকে ধরা হয়। রাতেই তার চেতনা ফিরে এসেছে। তবে শারীরিক দুর্বলতার কারণে হাতিটি দাঁড়াতে পারছিলো না। খাবার দেয়া ও পরিচর্যা করা হলে শুক্রবার সকালে হাতিটি স্বাভাবিকভাবে দাঁড়ায়। এ সময় পায়ে বাঁধা দড়ি ছিঁড়ে ফেললে তাকে শিকল দিয়ে আটকে রাখা হয়। গতকাল বাধন ছিড়ে সে পালায়। বানের জলে ভেসে আসা বুনো হাতিটিকে আটক করতে অনেক চেষ্টার পর এবার শুকনো স্থানে কয়েকটি ফাঁদ বসানো হয়েছে। তবে ফাঁদ বসানোর ১০ ঘণ্টা পার হলেও গতরাতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ফাঁদে পা দেয়নি হাতিটি।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *