দামুড়হুদায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে অমানুষিক নির্যাতন

দামুড়হুদা অফিস: দামুড়হুদা উপজেলা সদরের পুরাতন বাজারে ১ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে অমানুষিক নির্যাতন করেছে স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি। তাকে দামুড়হুদা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয়।

জানা গেছে, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়নের চিৎলা গ্রামের মনির হোসেনের মেয়ে মুন্নির (১৮) সাথে ৩ বছর আগে বিয়ে হয় দামুড়হুদা পুরাতন বাজারপাড়ার রুস্তম আলীর ছেলে শাহীনের (২৮)। দাম্পত্য জীবনে তাদের একটি কন্যাসন্তান আছে। বিয়ের পর থেকে নেমে আসে মুন্নির ওপর অমানুষিক নির্যাতন। বিয়ের পর সোনার গয়নাগাটি, কিছু নগদ টাকা আসবাবপত্র দেয়া হয় মুন্নির স্বামী শাহীনকে। এরপর দফায় দফায় যৌতুকের ১ লাখ টাকা দাবি করে শাহীন। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে ৩০ হাজার টাকা জামাই শাহীনকে দেন মুন্নির পিতা মনির হোসেন। এরপরও থেমে থাকেনি তার ওপরে নির্যাতন। গত বৃহস্পতিবার আবারও মুন্নিকে যৌতুকের টাকা এনে দেয়ার জন্য বলে শাহীন। মুন্নি বলে, এতো টাকা আমার পিতা কোথায় পাবে? এ কথা বললে তার মুন্নির ওপর শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্বামী শাহীন মিলে অমানুষিক নির্যাতন চালায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মুন্নি তার চাচা দামুড়হুদা পাইলট মডেল হাইস্কুলের দপ্তরি রোকনুজ্জামানের কাছে তার নির্যাতনের বিষয়টি বলতে গেলে স্কুলের সামনে স্বামীপক্ষের লোকজন মুন্নিকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা অপচেষ্টা করে। এলাকার লোকজন তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে দামুড়হুদা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স এ ভর্তি করে।

Leave a comment

Your email address will not be published.