দামুড়হুদায় করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ দরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

দামুড়হুদা ব্যুরো: দামুড়হুদায় প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি করোনা ভাইরাসের সংক্রমন প্রতিরোধে সকলকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার আহবান জানানো হয়েছে। এ ছাড়া দামুড়হুদা স্পোর্টিংক্লাব ও ড্রীম সেন্টার পাবলিক লাইব্রেরীর উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক লিফলেট ও সাবান বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার বিকেল থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম মুনিম লিংকনের নেতৃত্বে করোনায় কাজ হারানো ক্ষতিগ্রস্থ প্রায় শতাধিক দরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে করা হয়। দামুড়হুদার ইব্রাহিমপুরস্থ আবাসনের বাসিন্দাদের মাঝে, বিষ্ণুপুর ও জুড়ানপুরমোড়স্থ চা দোকানি এবং দামুড়হুদা বাসস্ট্যান্ডস্থ সেলুন কারিগরদের মাঝে মাথাপিছু ১০ কেজি চাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি মুসর ডাল, ১ কেজি তেল, ১ কেজি লবন, হাফ কেজি চিড়া এবং একটি করে সাবান বিতরণ করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মহি উদ্দিন,      আব্দুল ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কামাল উদ্দীন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আশরাফ হোসেন, আইসিটি টেকনিশিয়ান খাইরুল কবির দিনার, অফিস সহায়ক রফিকুল ইসলাম প্রমূখ। এ ছাড়া দামুড়হুদা স্পোর্টিংক্লাব ও ড্রীম সেন্টার পাবলিক লাইব্রেরীর উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক লিফলেট ও সাবান বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার এলাকার প্রায় দুই শতাধিক ব্যক্তির মাঝে একটি করে সাবান ও লিফলেট বিতরণ করা হয়। দামুড়হুদা স্পোর্টিংক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এমরাজ উদ্দীন খোকন উপস্থিত থেকে এলাকার দরিদ্রদের হাতে সাবান তুলে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক মেম্বার একরামুল হোসেন, দামুড়হুদা স্পোর্টিংক্লাবের ম্যানেজার শহিদ আজম সদু প্রমূখ। এ দিকে দামুড়হুদায় নতুন করে একই পরিবারের দুইজন রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে। দামুড়হুদা গুলশানপাড়ার বাপ-মেয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে মর্মে সন্দেহ করা হচ্ছে। তাদের উভয়কেই হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল শুভ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, বিষয়টি জানার পরপরই ওই বাড়িতে মেডিকেল টিম পাঠানো হয়েছিলো। তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে এবং তারা উভয়ই নিজ বাড়িতে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। শ্বাসকষ্ট বেশী হলে তাদেরকে আইসোলেশনে নেয়া হতে পারে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.