দলীয় হিসাব জমায় খবর নেই আওয়ামী লীগ-বিএনপির

স্টাফ রিপোর্টার: রাজনৈতিক দলের ২০১৬ সালের আয়-ব্যয়ের প্রতিবেদন দেয়ার সময় শেষ হচ্ছে ৩১ জুলাই সোমবার। এ পর্যন্ত বিরোধী দল জাতীয় পার্টিসহ মাত্র চারটি দল হিসাব জমা দিয়েছে। তবে এ বিষয়ে গতকাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ অনেক দলেরই কোনো খবর পায়নি ইসি।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, এখনো অধিকাংশ দল অডিট রিপোর্ট জমা না দিলেও বরাবরই তারা হিসাব জমা দিতে সময় বাড়ানোর আবেদন করে। এ পরিপ্রেক্ষিতে অন্তত এক মাস সময়ও দিয়ে থাকে ইসি। এবারও হিসাব জমা দেয়ার জন্য সময় বাড়াতে পারে নির্বাচন কমিশন। এ বিষয়ে ইসির সহকারী সচিব রওশন আরা জানান, সময় বাড়ানোর জন্য কেউ আবেদন না করলেও সোমবারের পর করণীয় বিষয় কমিশনের কাছে উপস্থাপন করা হবে। নারী প্রতিনিধির তথ্য : দলের সব স্তরের কমিটিতে নারীর প্রতিনিধিত্ব রাখার বিষয়ে হালনাগাদ প্রতিবেদন পাঠাতে ফের তাগিদ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আগামী ৪ আগস্টের মধ্যে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন দিতে ২৪টি দলকে চিঠি দেয়া হয়েছে। গতকাল দলগুলোর সাধারণ সম্পাদকদের কাছে তাগিদপত্র পাঠানো হয়েছে বলে জানান ইসির সহকারী সচিব রৌশন আরা। তিনি জানান, গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুযায়ী ২০২০ সালের মধ্যে দলের সব পর্যায়ের কমিটিতে অন্তত ৩৩ শতাংশ নারী প্রতিনিধিত্ব রাখার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। দলগুলো নিবন্ধন নেয়ার সময় এ বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। গত ১৩ জুন নিবন্ধিত দলগুলোকে নারী প্রতিনিধিত্বের অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে প্রথম দফা চিঠি দেয় কমিশন। এক মাসে মাত্র ১৬টি দলের সাড়া পেলেও বাকি দলগুলো কোনো প্রতিবেদন দেয়নি। এ অবস্থায় দ্বিতীয় দফা চিঠি দিয়ে তাগিদপত্র দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ৪ আগস্টের মধ্যে দলগুলোকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

প্রতিবেদন ১৬ দলের: ইসি সূত্র জানায়, এ পর্যন্ত আওয়ামী লীগ, খেলাফত মজলিস, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপ, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি, জাতীয় পার্টি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি, সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা, কল্যাণ পার্টি, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, জাকের পার্টি, জাতীয় পার্টি-জেপি, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি, গণফ্রন্ট, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি-জেপি ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট তাদের অগ্রগতি জানিয়েছে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.