দর্শনা রেলইয়ার্ডে লুটেরাচক্রের হানা রয়েছে অব্যাহত : ফের নিরাপত্তা ও লুটেরাচক্র মুখোমুখি

দু নিরাপত্তাকর্মীকে কুপিয়েছে লুটেরাচক্র : ইয়ার্ডে ৩ রাউন্ড গুলিবর্ষণ

 

দর্শনা অফিস: দর্শনা রেলইয়ার্ডে কোনোভাবেই লুটেরাদের ঠেকাতে পারছেন না নিরাপত্তা সদস্যরা। প্রতিনিয়ত ঘটছে লুটপাটের ঘটনা। নিরাপত্তাদের সাথে লুটেরাদের মুখোমুখি অবস্থানের ঘটনাও ঘটছে বারবার। মাত্র তিনদিনের মাথায় ইয়ার্ডে আবারো হানা দিয়েছে লুটেরাচক্র। লুটেরাদের মোকাবেলায় দর্শনা রেলইয়ার্ডে নিরাপত্তাদের সাথে ঘটেছে ধাওয়া-পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা। লুটেরাদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে  জখম হয়েছে দু নিরাপত্তাকর্মী। ইয়ার্ডে ৩ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হয়েছে। গুলিতে কেউ হতাহত হয়েছে কি-না তা জানা যায়নি। নিরাপত্তা টহল জোরদার করা হয়েছে।

জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে দর্শনা রেলইয়ার্ডে সশস্ত্র হানা দেয় ২০/২২ জনের লুটেরাচক্র। লুটেরাচক্রের সদস্যরা ইয়ার্ডে রক্ষিত ভারত থেকে আমদানিকৃত সয়াবিন ভর্তি ওয়াগনের দরজা ভেঙে লুটপাট শুরু করে। এ সময় দর্শনা রেলওয়ে নিরাপত্তা বিভাগের সদস্যরা বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে লুটেরাচক্রের সদস্যরা তেড়ে আসে। এক পর্যায়ে ধারালো রাম দা দিয়ে নিরাপত্তাকর্মীদের ওপর হামলা করে। এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে নিরাপত্তা বিভাগের সদস্যদের। লুটপাটকারীদের ধারালো অস্ত্রের কোপে রক্তাক্ত জখম হয়েছে নিরাপত্তাকর্মী রুবেল (২৫) ও নুরুজ্জামান (২৪)। পরিস্থিতি বেসামাল হয়ে পড়লে নিজেদের রক্ষার্থে নিরাপত্তা সদস্যরা পরপর ৩ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে। গুলির শব্দে লুটেরাচক্রের সদস্যরা পালিয়ে যায়। গুলিতে কেউ হতাহত হয়েছে কি-না তা জানা না গেলেও রক্তাক্ত জখম অবস্থায় নিরাপত্তাকর্মীদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়েছে হাসপাতালে। এ ঘটনায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নিরাপত্তা বিভাগ থেকে কেউ হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেনি। তবে লুটেরাদের সাথে দর্শনা রেলওয়ে নিরাপত্তা বিভাগের ইন্সপেক্টর তৌফিকের অর্থচুক্তির অভিযোগ অনেকেরই।

উল্লেখ্য, গত সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে দর্শনা রেলইয়ার্ডে লুটেরাচক্র হামলা চালিয়ে নিরাপত্তা সদস্য সাইফুল ইসলামের পায়ের রগ কেটে দেয়। আহত সাইফুল বর্তমানে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ওই ঘটনার সময় নিরাপত্তা সদস্যরা নিজেদের রক্ষার্থে ১ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করেন। ওই হামলার ঘটনায় দর্শনা রেলওয়ে নিরাপত্তা বিভাগের এএসআই গোলাম কিবরিয়া বাদী হয়ে পোড়াদহ জিআরপি থানায় বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরও অজ্ঞাত কারণে লুটেরাদের কাউকে ধরতে পারেনি নিরাপত্তা বিভাগের সদস্যরা। নিরাপত্তা বিভাগের রাজশাহী চিফ কমানডেন্ট আমিনুর রশিদের সাথে কথা বললে তিনি জানান, দর্শনা রেলইয়ার্ডকে লুটেরামুক্ত করতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। এছাড়া লোকবল বৃদ্ধি করা হয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যে অতিরিক্ত লোকবলের মাধ্যমে ইয়ার্ড রক্ষা করা হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *