দর্শনার মাথাভাঙ্গা নদী থেকে বাজারের ব্যাগে শিশুর লাশ উদ্ধার

 

দর্শনা অফিস: কার অপকের্মর বোঝা ভাসলো নদীর পানিতে? ফুটফুটে নবজাতকের মুখে কাপড় গুজে হত্যা করে ফেলা হয়েছে মাথাভাঙ্গা নদীর পানিতে। বাজারের ব্যাগে ফেলা নবজাতকের লাশ পানিতে ভাসতে দেখে আঁতকে ওঠে অনেকেই। অপকর্মের হোতার সন্ধ্যান পাওয়া না গেলেও নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। বুধবার বিকেলে মাথাভাঙ্গা নদীর শ্যামপুর পাইপ ঘাট এলাকায় উঠতি বয়সের ছেলে-মেয়েরা মুক্ত বাতাশে ঘোরাঘুরি করে থাকে। এ সময় জনৈক যুবক নদীর পানিতে বাজারের ব্যাগ ভাসতে দেখলে কৌতুহলিভাবে ব্যাগটি টেনে নদীর পাড়ে আনে। ততোক্ষণ পর্যন্ত বেশ কয়েকজন জমে যায় নদীর ধারে। ব্যাগের মুখ খুলে চমকে উঠে সকলে। ফুটফুটে নবজাতক পুত্রসন্তানের মুখে কাপড় গুজে হত্যা করেছে কোনো মানুষ রুপি নরপশু। নবজাতকের কান্না থামাতে মুখে কাপড় গুজে দেয়া হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। নবজাতককে হত্যা শেষে বাজারের ব্যাগে ভরে নদীর পানিতে ফেলে নিজের পাপকে গোপন করার চেষ্টা করেছে কোনো এক নিষ্টুর মা কিংবা জন্মদাতা। ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক জনতা ভীড় জমায়। পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সহায়তায় দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে নবজাতকের লাশ।

এ ঘটনায় দর্শনা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইন্সপেক্টর শোনিত কুমার গায়েনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ ঘটনায় কোনো প্রকার অভিযোগ হয়নি। কোনো এক জেলের মাছ ধরার জালে নবজাতকের লাশ পাওয়া গেছে শুনে ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই কে বা কারা লাশ দাফন করেছে শুনেছি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *