ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ থানার ওসি ও এসআই হাবিবুর রহমানের কারিশমা!

 

হাজতবন্দি থেকেও তিনজনের বাইরে এসে হামলা ভাঙচুর?

কালীগঞ্জ প্রতিনিধি: ওরা তিনজন জেলহাজতে বন্দি থাকলেও পুলিশের ওপর হামলা ও গাড়ি ভাঙচুর করেছে। তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা রুজুর পর ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ থানার ওসির দায়িত্বহীনতার নজিরের বর্ণনা করতে গিয়ে স্থানীয়রা হাস্যোছলে বলেছেন, ওসি কি তাহলে নিজেই ওই তিনজনকে জেলহাজত থেকে বের করে গাড়ি ভাঙচুর করিয়ে ফের জেলহাজতে রেখেছেন?

‌                জানা গেছে, ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ উপজেলার বারবাজারের বেলাট দৌলতপুর গ্রামের আফসার আলীর ছেলে শিক্ষক আরশেদ আলী, কোলা ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের আকবর বিশ্বাসের ছেলে মুক্তার হোসেন, ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নের বড়ঘিঘাটি গ্রামের বেলাল উদ্দিনের ছেলে আরিচ জেলহাজতে। এদিকে গত ৩ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ১৮দলীয় জোটের মিছিল থেকে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ও বোমা নিক্ষেপ করা হয়। এতে কালীগঞ্জ থানার ওসি মনির উদ্দিন মোল্লা ও  এসআই হাবিব আহত হন। রাতেই পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর, বোমা বিস্ফোরণ ও পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে বিস্ফোরক আইনে  ১৮দলের কর্মী আরিচ, আরশেদ আলী, মুক্তার হোসেনসহ ৭৩ জন নেতা-কর্মী ও অজ্ঞাত ১৪০/১৫০ জনের নামে মামলা হয়। এসআই হাবিবুর রহমান সরদার বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় ওই মামলা দায়ের করেন। অথচ অভিযুক্ত আরিচ, আরশেদ আলী ও মুক্তার হোসেন গত ১৮/০৮/১৩ তারিখে কালীগঞ্জ থানায় পুলিশের দায়ের করা ১৯২ নং মামলার আসামি হিসেবে বর্তমানে ঝিনাইদহ জেলা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রয়েছেন বলে জানিয়েছেন তারই পরিবারের সদস্যরা। পরিবারের সদস্যদের নিকট থেকে তথ্য পেয়ে স্থানীয় রসিকজনেরা কালীগঞ্জ থানার ওসি ও মামলার বাদীকে নিয়ে নানা ধরনের কটুক্তি করতে ছাড়ছে না।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *