ঝিনাইদহে দুই নারী ধর্ষণের দায়ে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের তিন নেতা গ্রেফতার

 

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ শাহিনসহ তার দুই সাগরেদ ধর্ষণের দায়ে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছে। শাহিন কোটচাঁদপুর রেলস্টেশনপাড়ার ফজলুর রহমানের ছেলে। গ্রেফতারকৃত অন্য দুই ধর্ষক হচ্ছে যুবলীগের ওয়ার্ড সভাপতি ও রেলস্টেশন পাড়ার শ্রীকান্তের ছেলে কৃষ্ণ কুমার ও একই পাড়ার হারেজ আলীর ছেলে রাজু আহম্মেদ। কৃষ্ণের বাবা চা বিক্রেতা ও রাজুর মা ভিক্ষাবৃত্তি করে। এদের মধ্যে কৃষ্ণ ও রাজু কোটচাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জাহিদুল ইসলাম জিরের বর্ডিগার্ড বলে পুলিশ জানায়। আজগার আলী ও সবুজ নামে আরও দুই ধর্ষককে খুঁজছে পুলিশ।

কোটচাঁদপুর থানার ওসি বিপ্লব কুমার সাহা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেছেন, এ বিষয়ে থানায় একটি মামলা হয়েছে। তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি দুজন পলাতক রয়েছে। পুলিশ ও এলাকাবাসীসূত্রে প্রকাশ গত সোমবার কালীগঞ্জ উপজেলার নলডাঙ্গা ও মনোহরপুর গ্রামের দুই মেয়ে কোটচাঁদপুরে আসে সুন্দরবন এক্সপ্রেসে ঢাকায় যাওয়ার জন্য। তারা গার্মেন্টসে কাজের সন্ধানে ঢাকায় যাচ্ছিলো। রাতে তারা ট্রেনের জন্য কোটচাঁদপুরে প্লাটফর্মে অপেক্ষা করছিলো। এ সময় যুবলীগ নেতা কৃষ্ণ, রাজু, সবুজ, আজগার ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ শাহিন তাদের উঠিয়ে প্রথমে বিহারীপাড়ার বেবি নামে এক মহিলার বাড়িতে নিয়ে যায়। বেবি জায়গা না দিলে মেয়ে দুইটিকে সরকারি কলেজের পেছনে রিকশা চালক আজিমের কলোনীতে নিয়ে তার স্ত্রীর সহায়তায় সারা রাত ধরে পাশবিক নির্যাতন চালায়। বিষয়টি জানা জানি হয়ে পড়লে কোটচাঁদপুর থানার ওসি বিপ্লব কুমার ও ইমরান নামে এক দারোগা ষাট হাজার টাকায় রফা করে বলে প্রচার হয়।

ধর্ষণের ঘটনাটি ব্যাপকভাবে জানাজানি হয়ে পড়লে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করতে বাধ্য হয়।

কোটচাঁদপুর পৌর সভার মেয়র জাহিদুল জানান, ধর্ষকরা তার কোনো দেহরক্ষী নয়। তারা ছাত্র ও যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। আমি স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তারা কেন আমার সাথে বেড়াবে? প্রশ্ন রাখেন মেয়র জাহিদুল।

বিষয়ে কোটচাঁদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুরিশ সুপার রেজাউল করিম জানান, আমি ট্রেনিংয়ে ঢাকায় আছি। তবে এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে কোনো আপোষ নয়। মেয়ের চাচা ও নিকটাত্মীয় জানান, মেয়ে দুটি পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। তারা যার যার নাম বলছে এবং চিনতে পেরেছে পুলিশ তাদের আসামি করছে। কোটচাঁদপুর থানার ওসি বিপ্লব কুমার সাহা জানান, বুধবার বিকেলে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য মেয়ে দুটিকে ঝিনাইদহে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *