ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ইসলামী ব্যাংকের গার্ডকে খুন করে ৭৪ লাখ টাকা লুটের অপরাধীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে

 

ঝিনাইদহ অফিস: ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের ইসলামী ব্যাংকের গার্ড আয়ুব হোসেনকে হত্যা শেষে ব্যাংকের ভোল্ট ভেঙে ৭৪ লাখ টাকা ডাকাতির ১০ দিন অতিবাহিত হলেও মামলার কোনো অগ্রগতি নেই। পুলিশ উপজেলার আলাইপুর থেকে শরিফুল ইসলাম নামের একজনকে আটক করলে কোনো তথ্য উদঘাটন করতে পারেনি। আটক করতে পারেনি ডাকাতির সাথে জড়িত অপরাধীকে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কালীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) ইউনুচ আলী বতর্মানে আসামি ধরতে ঝালকাঠিতে অবস্থান করছেন। ব্যাংকের গার্ড হত্যা ও  টাকা লুটের ঘটনায় ব্যাংকের ম্যানেজার মাহমুদ হাসান বাদী হয়ে ২১ অক্টোবর কালীগঞ্জ থানায় একজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন।

জানা গেছে, উপজেলার আলাইপুর গ্রামের শরিফুল ইসলাম ব্যাংকের তৃতীয় তলায় বিসমিল্লাহ কনজুমার বাংলাদেশ লিমিটেডের অফিস ভাড়া করে দেয়ার জন্য কোম্পানির এক ব্যক্তিকে মার্কেটের মালিকের সাথে পরিচয় করে দেয়। মার্কেটের মালিক গত ২৯ সেপ্টেম্বর ওই কোম্পানিকে ৩য় তলার একটি রুম মাসিক ১৬ হাজার টাকা ভাড়ায় দিয়েছিলো এবং তারা ঈদের পর ঘরের মালিকানা ডিড করবে বলে তিনি চলে য়ান।

এরই মধ্যে ওই কোম্পানিতে ব্যাংকের গার্ড আয়ুব হোসেনের ভাই রবিউলকে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেয়িয়ে তার সাথে সখ্যতা গড়ে তুলেন বিসমিল্লাহ কনজুমারের এক কর্মকর্তা। তারাই গার্ডকে জুস খাইয়ে অজ্ঞান করে  হত্যা শেষে ব্যাংকের চাবি নিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে এবং ভোল্ট ভেঙে ৭৪ লাখ টাকা ডাকাতি করে নিয়ে যায় বলে থানা পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে। পুলিশ আলাইপুর থেকে বিসমিল্লাহ কনজুমার বাংলাদেশ লিমিটেডের কর্মকর্তাকে মার্কেটের মালিকের সাথে পরিচয় করে দেয়া শরিফুলকে আটক করেছে। তবে তার কাছ থেকে কোনো তথ্য উদঘাটন করতে পারেনি।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মনির উদ্দীন মোল্ল্যা জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) ইউনুস আলী সম্ভাবত আসামিদের সন্ধান পেয়েছেন। বর্তমানে তিনি চাঞ্চল্যকর এ মামলার কাজে ঝালকাঠিতে অবস্থান করছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *