জীবননগরে অন্তরঙ্গ সংলাপে কুসুমের আত্মকথন প্রদর্শণ

নারীদের তেঁতুলের সাথে তুলনা করা হলো কেন?   

 

জীবননগর ব্যুরো: চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে নারীর উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন নিয়ে গতকাল বুধবার একটি অন্তরঙ্গ সংলাপ ‘আপনারা কেমন আছেন’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংলাপ অনুষ্ঠানে নারীর উন্নয়ন, অগ্রযাত্রা ও ক্ষমতায়নে বাধার ওপর নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র ‘একজন কুসুমের আত্মকথন’ ভিডিও ক্লিপ প্রদর্শণ করা হয়। সংলাপে নারী নেত্রী, স্কুল-কলেজের শিক্ষিকা, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে আগত শতাধিক নারী কর্মকর্তা নারীর ক্ষমতায়ন, অগ্রযাত্রা ও উন্নয়ন নিয়ে আয়োজকদের উদ্দেশে একের পর এক প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন। দিয়েছেন পরামর্শও। সংলাপে পুরুষরাও প্রশ্ন করার সুযোগ পেয়েছেন। সংলাপে উপস্থিত এমপি আলী আজগার টগরও প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, হেফাজতের সমাবেশ থেকে নারীদেরকে তেঁতুলের সাথে তুলনা করা হলো কেন? আবশ্য এর যথাযথ উত্তরও দিয়েছেন সংলাপের কো-মডারেটর অতিরিক্ত জেলা প্রসাশক (রাজস্ব) মল্লিক সাঈদ মাহবুব।

সংলাপ মঞ্চে জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আফরোজা জাহান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান হাফিজ, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা আক্তার রিনি, ওসি আব্দুর রকিব খান ও জীবননগর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ নিজামউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন। কলেজ শিক্ষিকা আসমা খাতুন, স্কুল শিক্ষিকা রাবেয় খাতুন, শিউলী খাতুন, বীমা কর্মকতা নিলুফা ইয়াসমিন রানী, জনপ্রতিনিধি রেখা খাতুন প্রমুখ নারীর উন্নয়ন, অগ্রযাত্রা ও ক্ষমতায়ন নিয়ে অনুষ্ঠিত সংলাপে নানা প্রশ্ন করেন। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এবং জীবননগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত নারীর উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে বর্তমান সরকারের অর্জন ও নারীর অগ্রযাত্রার ক্ষেত্রে করণীয় সংলাপে মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হুসাইন। কো-মডারেটরের দায়িত্বে ছিলেন চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মল্লিক সাঈদ মাহবুব। সংলাপে সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজেদুর রহমান ও সহসমন্বয়ক ছিলেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা স্মৃতি রায়। সংলাপে এছাড়াও সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সূধী ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংলাপের শেষ পর্যায়ে সংসদ সদস্য আলী আজগার টগর বলেন, নারীর ক্ষমতায়ন ও উন্নয়নে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। মন্ত্রী, স্পিকার, এমপিসহ সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে বর্তমান সরকার নারীদের পদায়ন করে তাদের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রেখেছে। তিনি এর পূর্বে প্রশ্ন করে বলেন, হেফাজতের একটি সভা থেকে নারীদের তেঁতুলের সাথে তুলনা করা হলো কেন? এ প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে সংলাপের কো-মডারেটর এডিসি মল্লিক সাঈদ মাহবুব বলেছেন, কোরআন-হাদিসের আলোকে এর কোনো ভিত্তি নেই। নারীর মর্যাদা ক্ষুন্ন করতে এটি কোনো ব্যক্তির নিজস্ব মতামত হতে পারে। এর কোনো ভিত্তি নেই। জেলা প্রশাসক মো. দোলোয়ার হুসাইন বলেন, নারীদের শক্র নারীরাই। স্বামী-শ্বাশুড়ি মিলে এ নির্যাতন শুরু করে। পরে ননদসহ অন্যরা যোগ দেয়। এর থেকে পরিত্রান পেতে তিনি সকলকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হওয়ার জন্য আহ্বান জানান।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *