জাতীয়করণের দাবিতে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার: জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্ট চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার মানববন্ধন গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় শহীদ হাসান চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেসরকারি বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে জাতীয়করণসহ বিভিন্ন দাবি সংবলিত ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধনে জড়ো হন। শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণসহ ৫ ভাগ প্রবৃদ্ধি, বোশেখি ভাতা, পূর্ণাঙ্গ উৎসব ভাতা, পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা ভাতা, ৪৫ ভাগ বাড়িভাড়া, পূর্ণাঙ্গ পেনশন, শর্ত পূরণকারী নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও প্রদানসহ বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীর মূল বেতন থেকে অবসর-কল্যাণ ট্রাস্টে ১০ শতাংশ কর্তনের গেজেট বাতিলের দাবি করে সংগঠনের জেলা সমন্বয়কারী অধ্যাপক লুৎফর রহমান, বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি আবুল কাসেম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ বক্তৃতায় বলেন, ২০১৫ সালের ৮ম জাতীয় পে-স্কেল বাস্তবায়ন হলেও এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ক্ষেত্রে এখনও সরকারের প্রতিশ্রুতি ৫ শতাংশ ইনিক্রমেন্ট বাস্তবায়ন হয়নি। সামান্য বেতনভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের সারা জীবনের একটিমাত্র টাইমস্কেল সেটিও বন্ধ রাখা হয়েছে। এমনকি সার্বজনীন বোশেখি ভাতা থেকেও বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বঞ্চিত করা হয়েছে। এটা খুবই দুঃখজনক এবং এই বঞ্চনা শিক্ষার গুণগত মানের পথে অন্তরায়। বর্তমানে এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের কোনো ইনক্রিমেন্ট নেই। তাই ৫ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট নিয়ে কোনো প্রকার তালবাহানা শিক্ষক সমাজ মেনে নেবে না। অবিলম্বে বকেয়াসহ ৫ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট, বকেয়াসহ বোশেখি ভাতা, পূর্ণাঙ্গ ঈদ বোনাস প্রদানসহ শিক্ষক-কর্মচারীদের চাকরি জাতীয়করণের ঘোষণায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন শিক্ষক নেতৃবৃন্দ।
দাবি আদায়ের লক্ষ্যে আন্দোলনকে আরও তীব্রতর করার জন্য জেলার সকল বেসরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের আগামী ২৩ জুলাই রোববার বেলা ১১টায় উপজেলাসমূহে অনুষ্ঠেয় বিক্ষোভ মিছিলে এবং ৩০ জুলাই রোববার বেলা ১১টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরের সমাবেশ এবং সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ কর্মসূচিতে যোগ দেয়ার আহ্বান জানান নেতৃবৃন্দ।

Leave a comment

Your email address will not be published.