চোর শুনেছে ধর্মের কাহিনী!

মাথাভাঙ্গা মনিটর: চোর শোনে না ধর্মের কাহিনী! চোরের বোধোদয় হয় না বলে এমন প্রবাদই প্রচলিত হয়ে গেছে। তবে এ প্রবাদটিকে মিথ্যা প্রমাণ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের জনৈক চোর! চুরির ১২ বছর পর রীতিমত ক্ষমা চেয়ে চিঠি লিখেছেন ক্ষতির শিকার ব্যক্তিকে! যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলীয় শহর নাসভিলে প্রায় ১২ বছর আগে চুরি করেছিলেন সম্প্রতি ধর্মের কাহিনী শোনা এই চোর। সেই ঘটনার জন্য অনুতপ্ত হয়ে চিঠি দিয়েছেন চুরির জন্য ক্ষতির শিকার লোকটিকে। নিজেকে অজ্ঞাতপরিচয় উল্লেখ করে এ নব্য সাধু লিখেন, সে সময় আমি মাদকাসক্ত ছিলাম। তবে এখন আমি মাদক ছেড়ে দিয়েছি। আমি মনে করি, ও‌ই ঘটনায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত! ২০০২ বা ২০০৩ সালের দিকে এক দোকানে ঘটানো চুরির বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, ওইদিন আনুমানিক রাত নয়টা বা দশটার দিকে আমি দোকানটিতে প্রবেশ করি। এরপর ছয়টি বিয়ার ক্যান ও এক প্যাকেট সিগারেট নেই। তারপর মূল্য পরিশোধের নাম করে দোকানদারকে বন্দুকের মুখে জিম্মি করে তার ক্যাশবাক্স থেকে তিনশ ডলার ছিনিয়ে নিই এবং একটি শাদা রঙের গাড়ি নিয়ে সটকে পড়ি! চুরির ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত লোককে উদ্দেশ্য করে অনুতপ্ত ওই সাবেক চোর লিখেন, আশ‍া করি আপনি আমার চিঠিটি পেয়েছেন এবং ওই ঘটনার জন্য আমাকে ক্ষমা করেছেন। এখন চোরের পক্ষে সমঝতার লোকেরা টিটকারি কাটতেই পারেন, সময় হলে চোরও শোনে ধর্মের কাহিনী!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *