চুয়াডাঙ্গা হাতিকাটা স্কুলের ভবন নির্মাণের বছর যেতে না যেতেই ধসে পড়ার উপক্রম

 

মারুফ হোসেন: বছর যেতে না যেতেই হাতিকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবন ভেঙে পড়তে শুরু করেছে। ঝুঁকিপূর্ণ এ ভবনেই বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ক্লাস করছে। তবে ভবন নির্মাণকাজের সাথে জড়িতরা সাংবাদিক দেখলেই ক্ষেপে যাচ্ছেন। তাদের কথা এসব লিখে কোনো লাভ হবে না। এমনকি বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারাও সাংবাদিক দেখে বিরক্তি প্রকাশ এবং নেতিবাচক মন্তব্য করেন।

সূত্র জানায়, ২০১২-১৩ খ্রিস্টাব্দে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলুকদিয়া ইউনিয়নের হাতিকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি ৬ কক্ষ বিশিষ্ট দ্বিতল ভবন নির্মাণ করা হয়। এ নির্মাণকাজের ঠিকাদার ছিলেন মুক্তার হোসেন। ভবন নির্মাণের বছর যেতে না যেতেই ভবন ধসে পড়া শুরু হয়েছে। জানালা ও ছাদের কার্নিশগুলো ধসে ধসে পড়ছে। এ ছাড়া দেয়ালের বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হয় বড় ধরনের ঝড়-বৃষ্টিতে ভবনটি ভেঙে পড়তে পারে। এ ভবন নির্মাণকাজে সংশ্লিষ্টরা শুভঙ্করের ফাঁকি দিয়ে ভবন নির্মাণ করায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে সচেতন মহল মনে করছে। এ ব্যাপারে গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে এই প্রতিবেদক সরেজমিনে স্কুলটি দেখতে গেলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছা. উম্মে সালমা জানান, এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে জানানো হয়েছে। এলাকাবাসীর দাবি ভবনটি নতুন করে নির্মাণ করা প্রয়োজন। একই সাথে নির্মাণকাজের সাথে যারা সংশ্লিষ্ট ছিলেন তাদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা দরকার।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *