চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গাড়াবাড়িয়া গ্রামে টিনের বাড়িতে হঠাৎ আগুন মালামাল ভস্মিভূত : এলকাবাসীর সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গাড়াবাড়িয়া গ্রামে একটি টিনের বাড়িতে প্রতিবেশির বিরুদ্ধে আগুন লাগানোর অভিযোগ করেছে এক হতদরিদ্র পরিবার । গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে এই আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটেছে। তবে, প্রতিপক্ষরা বলেছেন, তারা নিজেরাই নিজেদের বাড়িতে আগুন লাগিয়ে তাদের নামে মিথ্যা অভিযোগ করছে। পুলিশ ঘটনা তদন্তে মাঠে নেমেছে।
সদর উপজেলার গাড়াবাড়িয়া গ্রামের ছাগলাপাড়ার শুকুর আলীর ছেলে হাসানের স্ত্রী লাকী এবং তার দুই ছেলে হুমায়ন (৮) ও হাবিবকে (২) নিয়ে রাতে ঘুমিয়ে ছিলেন। রাত আড়াইটার দিকে কে বা কারা টিনের ঘরে আগুন লাগিয়ে দেয়। এ সময় চিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে আগুন নিভিয়ে ফেলে। তবে, সবকিছু পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে যায়।
ক্ষতিগ্রস্থ হাসানের মা জানান, তিনি পার্শ্ববর্তি বাড়িতে ঘুমিয়ে ছিলেন। গভীর রাতে ছেলের বাড়িতে আগুন দেখে চিৎকার করতে থাকেন এবং সবাই ছুটে আসে। এসময় প্রতিবেশিরা এসে আগুন নিভিয়ে দেয়। আগুনে সবকিছু পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে গেছে। এ ঘটনায় প্রতিবেশি চাচাতো দেবরের ছেলে লাল্টুকে সন্দেহ করা হয়। এ ঘটনার আগে গত সোমবার বাঁশ ও কুঞ্চি কাটার পর সরানো নিয়ে ছেলে হাসানের সঙ্গে লাল্টুর মারামারি হয়। ওই ঘটনায় হাসানের নামে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন লাল্টু। মামলার পর থেকে হাসান পলাতক রয়েছে।
প্রতিবেশি আনছার জানান, রাত আড়াইটার দিকে আগুন দেখে তিনিসহ মোসলেম, কামাল ও রঞ্জু এসে আগুন নিভিয়ে ফেলেন।
এদিকে, প্রতিবেশি দিনুর ছেলে লাল্টু জানান, গত সোমবার সকাল ৮টার দিকে নিজেদের বাঁশবাগানে বাঁশ ও কুঞ্চি কাটা নিয়ে হাসানের সঙ্গে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এ সময় তার মা বিনুকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেয় হাসান। এ ঘটনায় সদর থানায় মামলা করেন লাল্টু।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *