চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের শীর্ষ দু নেতার বাহাস’ নিয়ে যুবলীগ নেতৃবৃন্দের বিবৃতি

যুবলীগের রাজনীতিতে গ্রুপিং করার সুযোগ নেই

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের মধ্যে কোনো অর্ন্তদ্বন্দ্ব নেই। নেই কোনো ভেদাভেদ। জেলা যুবলীগ গঠনের পর থেকে কোনো দ্বিধা-দ্বন্দ্ব বা গ্রুপিং ছাড়াই রাজনৈতিক সমস্ত আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে। আগামীতেও যুবলীগ নেতৃবৃন্দ কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পরিচ্ছন্নভাবে রাজনীতিতে এগিয়ে যাবে। জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু, যুগ্ম আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান কবিরসহ যুবলীগ নেতৃবৃন্দ এক যুক্ত বিবৃতিতে এ কথা জানিয়েছেন।

গতকাল শুক্রবার দৈনিক মাথাভাঙ্গার প্রথম পাতায় প্রকাশিত ‘তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের শীর্ষ দু নেতার বাহাস’ শীর্ষক সংবাদ প্রকাশিত হলে যুবলীগ নেতৃবৃন্দ এ বিবৃতি দেন। গতরাতে যুবলীগ নেতৃবৃন্দ দৈনিক মাথাভাঙ্গা কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে বিবৃতি প্রদান করেন। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, জেলা যুবলীগের রাজনীতিতে গ্রুপিং করার কোনো সুযোগ নেই। আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সমস্ত নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের নির্দেশে তীব্র আন্দোলন সংগ্রাম করেছি এবং বর্তমানে আমাদের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রয়েছে। ভবিষ্যতেও এ বন্ধন অটুট থাকবে। কোনো বিভ্রান্তিকর তথ্যে যুবলীগ নেতাকর্মীদের বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়; কেউ যদি যুবলীগের রাজনীতি নিয়ে স্বার্থ হাচিলের অচেষ্টা করে তাহলে রঞ্জু ও কবিরের নেতৃত্বে যুবলীগ তার দাঁতভাঙা জবাব দেবে।

বিবৃতি দেয়ার সময় দৈনিক মাথাভাঙ্গা দফতরে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবলীগ নেতা আব্দুল কাদের, রাশেদুজ্জামান বাকী, সিরাজুল ইসলাম আসমান, শামীম আহমেদ সুমন, গোলাম মোস্তফা লালা, তারিক, নুরুজ্জামান টুটুল, শাহাবুদ্দিন রুবেল, হযরত আলী, বুলবুল, লিটন, বাদল প্রমুখ।

Leave a comment

Your email address will not be published.