চুয়াডাঙ্গায় ডিগ্রি (পাস) পরীক্ষার প্রস্তুতি সভায় জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস- কেন্দ্র সচিব ছাড়া কেউ মোবাইলফোন ব্যবহার করতে পারবেন না

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় ২০১৬ সালের ডিগ্রি (পাস) ও সার্টিফিকেট কোর্স ১ম বর্ষ পরীক্ষা উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। আগামী ৯ মে থেকে পরীক্ষা শুরু হয়ে পরীক্ষা ১৬ জুন শেষ হবে। পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্র সচিব বাদে আর কেউ মোবাইলফোন ব্যবহার করতে পারবে না। এ বছর মোট ১ হাজার ৩১৭ জন পরীক্ষার্থী ডিগ্রি (পাস) পরীক্ষায় অংশ নেবে।

জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুর রাজ্জাক ও সাবেক অধ্যক্ষ সিদ্দিকুর রহমান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুচিত্র রঞ্জন দাস ও ফখরুল ইসলাম এবং  কেন্দ্র সচিব ও তাদের মনোনীত প্রতিনিধিরা  উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জানানো হয়, চুয়াডাঙ্গায় ৭ পরীক্ষা কেন্দ্রে ১ হাজার ৩১৭ জন পরীক্ষার্থী ডিগ্রি (পাস) ও সার্টিফিকেট ১ম বর্ষ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। কেন্দ্রগুলো হলো চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ কেন্দ্রে ১১৫ জন, সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজ কেন্দ্রে ৫৯৪ জন, আলমডাঙ্গার এমএস জোহা ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে ১০১ জন, আলমডাঙ্গা ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে ১০৮ জন, জীবননগর ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে ১৪৮ জন, দর্শনা সরকারি কলেজ কেন্দ্রে ১৩৯ জন এবং চুয়াডাঙ্গা পৌর কলেজ কেন্দ্রে ১১২ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে।

প্রস্তুতিমূলক সভায় পুলিশ সুপারের প্রতিনিধি ডিআইও-১ সোলেমান হোসেন, সদর থানার ওসি (তদন্ত) গোলাম মোহাম্মদ, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ প্রামানিক, ভারপ্রাপ্ত জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আতাউর রহমান, আলমডাঙ্গা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু হাসান, জীবননগর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আলী আকবার, পৌর কলেজের সহকারী অধ্যাপক জুলফিকার আলী সেখ, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের প্রভাষক মেঘনাথ রায় ও প্রভাষক নাজমুল ইসলাম, সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক রৌফিকা নূর ও প্রভাষক শিপন আলী এবং দর্শনা সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক মহসীন হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

প্রস্তুতিমূলক সভায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস বলেন, হলসুপার ছাড়া কেউই মোবাইলফোন পরীক্ষা কেন্দ্রে নিয়ে আসতে পারবেন না। প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে মোবাইলফোন সাথে আনতে না পারে সেদিকে সকলকে খেয়াল রাখতে হবে। সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে পুলিশ প্রহরায় প্রশ্নপত্র কেন্দ্রে নিতে হবে। প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে প্রশ্নপত্র খুলতে হবে। কেন্দ্রের বাইরে এসব নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে ব্যানার টানাতে হবে এবং প্রয়োজনে মাইকিং করতে হবে। এবছরও যথারীতি কেন্দ্রে ১৪৪ ধারা জারি থাকবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *