চুয়াডাঙ্গার বেগমপুরে এক নিষ্ঠুর মায়ের কাণ্ড : আখক্ষেত থেকে নবজাতক উদ্ধার

 

অবশেষে ঠাই পেল নিঃসন্তান দম্পতির কোলে

বেগমপুর প্রতিনিধি: পৃথিবীতে জন্ম নেয়া পাপ নয়। কারণ ভূমিষ্ঠ হওয়া শিশুটি পাপ কী বোঝেনা। পিতা-মাতার নিকট তার সন্তানের চেয়ে প্রিয় বস্তু আর কিছুই না। কিন্তু মা কতোটা নিষ্ঠুর না হলে সদ্য ভূমিষ্ঠ সন্তানকে আখক্ষেতে ফেলে রেখে যান। এমনি এক ঘটনা ঘটেছে চুয়াডাঙ্গা সদরের বেগমপুর গ্রাম মাঠের আখক্ষেতে। সন্তানের কান্না শুনে পথচারীরা রক্তমাখা জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করেছে। অবশেষে শিশু ঠাঁই পেলো নিঃসন্তান দম্পতির বুকে। নবজাতক শিশুকে দেখতে উৎসুক জনতার ভিড় জমেছে ছাদেক আলীর বাড়ি।

জানাগেছে, ফজরের নামাজ পড়ে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের বিলপাড়ার মুসল্লিরা বেগমপুর দাখিল মাদরাসার মসজিদ থেকে বের হচ্ছেন। এ সময় যদুপুর গ্রামের জনৈক মুরগিব্যবসায়ী খবর দেন ফুলতলা নিকটবর্তী চুন্নু মিয়ার আখক্ষেত থেকে ভেসে আসছে শিশুর কান্না। সাহস করে বেগমপুর-উথলী সড়কের ওই আখক্ষেতের ২০ গজ ভেতরে আব্বাচ মিয়া গিয়ে দেখতে পান রক্তমাখা এক নবজাতক ছেলে সন্তান মাটির ওপর পড়ে আছে। প্রতিবেশীদের খবর দেন। একই পাড়ার ৩০ বছরের বিবাহিত জীবনের নিঃসন্তান দম্পতি ছাদেক আলীর স্ত্রী তনজু খাতুন শিশুটিকে দেখে বুকে তুলে নেন। সাথে সাথে শিশুটিকে নিয়ে যান চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য। চিকিৎসা শেষে বাড়ি নিয়ে এলে শিশুটিকে দেখতে উৎসুক জনতা ভিড় জমাতে থাকে।

অনেকেই মন্তব্য করে বলেন, এটা কোনো নিষ্ঠুর মায়ের পাপের ফসল। তা নাহলে ফুটফুটে এ সন্তানকে এভাবে ফেলে রেখে যেতে পারে না। এদিকে দাম্পত্য জীবনে সন্তানের পিতা-মাতা হতে না পারার শূন্যতা পূরণের জন্য ছাদেক-তনজু বুকে তুলে নিয়েছে শিশুটিকে। তাদের ঘরে নতুন মেহমান পেয়ে আহলাদে আটখানা হয়ে পড়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *