চীনে টাইফুনের আঘাতে নিহত ২৫

মাথাভাঙ্গা মনিটর: চীনের দক্ষিণাঞ্চলী প্রদেশ গুয়াংডংয়ে টাইফুন উসাগির আঘাতে অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছে। দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো গতকাল সোমবার সকালে জানিয়েছে, টাইফুনটি আঘাত হানার সময় বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিলো ঘণ্টা ১৮০ কিলোমিটারের মতো। এ সময় প্রবল বৃষ্টিপাতও রেকর্ড করা হয়। তীব্র ঝড়ে কিছু কিছু এলাকার গাছপালা উপড়ে যায় এবং সড়কে পার্কিংয়ে থাকা গাড়িগুলো ছিটকে যায়। বৈদ্যুতিক সংযোগ টাউয়ার ও মোবাইলফোন টাউয়ারগুলো সড়কের ওপর উপড়ে পড়ায় বেশকিছু এলাকা দৃশ্যত ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। এ টাইফুনটি আঘাত হানার কারণে চীনের মূল ভূখণ্ডের প্রায় ৩৫ লাখ লোক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রশাসনিক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, টাইফুনের কারণে, গোয়াংজু থেকে বেইজিংগামী ট্রেনের সকল শিডিউল অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা করা হয়েছে। এছাড়া গোয়াংজু, শেনঝেন ও হংকং বিমাবন্দরের নির্ধারিত কয়েকশ ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। আবহাওয়া দপ্তরের কর্মকর্তার‍া জানিয়েছেন, এটি এখন দুর্বল থেকে দুর্বল হয়ে দক্ষিণ চীনের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। তাই হংকং কিছুটা টাইফুনের ধ্বংসযজ্ঞ থেকে বেঁচে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তারপরও সোমবার সকালে হংকঙের সকল অর্থনৈতিক মার্কেট বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ফুজিয়ান প্রদেশের প্রায় ৮০ হাজার নাগরিককে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এছাড়া টাইফুন উপদ্রুত অঞ্চলে অর্ধ লাখেরও বেশি উদ্ধারকর্মী নিয়োগ দেয়া হয়েছে। শানবেই প্রদেশের একটি পেট্রোল স্টেশনের কর্মকর্তা ল্যু হাইলিং বলেন, আমার যতোদূর মনে পড়ে, এটাই সবচেয়ে শক্তিশালী টাইফুন। অনেক ভয়ঙ্কর টাইফুন এটা। ভাগ্য ভালো আমরা টাইফুন মোকাবেলায় প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলাম।

Leave a comment

Your email address will not be published.