চাপাতি নিয়ে মাস্তানি করতে গিয়ে বড়শলুয়া গ্রামের ঘরজামাই বিপুল উত্তম-মধ্যমের শিকার

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা বড়শলুয়া গ্রামের ঘরজামাই বিপুল মাজাই চা পাতি গুজে নিয়ে খাড়াগোদা বাজারে গাঁজা বিক্রেতার কাছে মাস্তানি করতে গিয়ে উত্তম-মধ্যমের শিকার হয়েছেন। চাপাতিসহ গ্রামবাসী বিপুলকে পুলিশের নিকট সোপর্দ করলেও পুলিশ অজ্ঞাতকারণে তাকে ছেড়ে দিয়েছে। চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার তিতুদহ ইউনিয়নের বড়শলুয়া হাটখোলা পাড়ার রিয়াজ উদ্দীন দায়ের ঘরজামাই বিপুল হোসেন গতকাল শনিবার দুপুর ১টার দিকে ফিরি গাঁজা আনতে যায় খাড়াগোদা বাজারপাড়ার জনু কর্মকারের নিকট। এ সময় জনু কর্মকার বিপুলকে বলে আমি গাঁজা বিক্রি করা ছেড়ে দিয়েছি। তাতেও মন গলে না বিপুলের। একপর্যায় বিপুল প্যান্টের মধ্যে মাজায়গোজা চাপাতি বের করে জনুকে কোপাতে যায়। জনুর চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এলে বিপুল দৌড়ে পালাতে যায়। গ্রামবাসী তার পিছু ধাওয়া করে চাপাতিসহ তাকে ধরে ফেলে উত্তম-মধ্যম এবং তিতুদহ ক্যাম্প পুলিশকে খবর দেয়। স্থানীয়রা জানান, চাপাতিসহ বিপুলকে পুলিশের নিকট সোপর্দ করা হলেও পুলিশ অজ্ঞাত কারণে তাকে ছেড়ে দেয়। এ বিষয়ে তিতুদহ ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ এএসআই আলমগীর হোসেন বলেন, বিপুলের বিরুদ্ধে কেউ অভিযোগ না দেয়ায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *