গাংনী মোটরশ্রমিক ইউনিয়নের ত্রিবার্ষিক নির্বাচন : সভাপতি নাসির সম্পাদক আশা

গাংনী প্রতিনিধি: উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্যদিয়ে মেহেরপুর জেলা মোটরশ্রমিক ইউনিয়নের গাংনী শাখার ত্রিবার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে গতকাল মঙ্গলবার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন গাংনী শাখার ভোটাররা। নির্বাচনে সভাপতি পদে নাসির উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক পদে আসাদুল ইসলাম আশা ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে মোতালেব হোসেন জয়লাভ করেছেন। সকল পদের প্রার্থীদের মধ্যে সর্বাধিক সংখ্যক ভোট পেয়ে কল্যাণ সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন কামরুল ইসলাম। সভাপতি পদে সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দীন ৮৯ ভোটে বর্তমান সভাপতি জমির উদ্দীনকে পরাজিত করেছেন। নাসির উদ্দীন (উড়োজাহাজ) পেয়েছেন ২৯০ ভোট। জমির উদ্দীন (ছাতা) ২০১ ভোট পেয়েছেন। কার্যকরী সভাপতি পদে মিজারুল ইসলাম (ট্রাক্টর) ২৫১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুর রাজ্জাক (হাঁস) ১৬৭ ভোট পেয়েছেন। সহসভাপতি পদে বিজয়ী হয়েছেন আব্দুল মান্নান (ট্রাক) ২৩৪ ভোট। একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী খোরশেদ আলী (গরুরগাড়ি) ২২৫ ভোট পেয়েছেন। সাধারণ সম্পাদক পদে আশাদুল ইসলাম আশা ৬৯ ভোটে বিজয়ী হয়েছেন। দেওয়াল ঘড়ি প্রতীকে তিনি ২১৬ ভোট পেয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রাশেদুল ইসলাম রাশেদ (মই) ১৪২ ভোট পেয়েছেন। বর্তমান সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব হোসেন (বাস) ৫১ ভোট এবং অপর প্রার্থী হাফিজুর রহমান (চেয়ার) পেয়েছেন ৪৭ ভোট। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে মোতালেব হোসেন ৯৩ ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছেন। তার (বাইসাইকেল) প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা ২৮৬। একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী মিল্টন খন্দকার (কলস) পেয়েছেন ১৯৩ ভোট। সহসাধারণ সম্পাদক পদে ডাকু মিয়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা নির্বাচিত হয়েছেন। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে পল্টু মিয়া বিজয়ী হয়েছেন। তিনি (সেলাইরেঞ্জ) পেয়েছেন ২৫৯ ভোট। প্রতিদ্বন্দ্বী হাফিজুর রহমান বাবু (জগ) ২১৯ ভোট পেয়েছেন। কল্যাণ সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন কামরুল ইসলাম। হাতি প্রতীকে তিনি ৩০৯ ভোট পেয়েছেন। যা সকল প্রার্থীর মধ্যে সর্বাধিক সংখ্যক ভোট। প্রতিদ্বন্দ্বী জাকির হোসেন টেটন (বালতি) পেয়েছেন ১৬১ ভোট। ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে শিলন হোসেন (ফুটবল) ২৯৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী আশরাফুল ইসলাম (ডাব) পেয়েছেন ১৫৫ ভোট। কোষাধ্যক্ষ পদে মহাসিন আলী (বাঘ) ২৮২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত। প্রতিদ্বন্দ্বী বসির আহম্মেদ (দোয়াত-কলম) ১৭৯ ভোট পেয়েছেন। প্রচার সম্পাদক পদে সাহাজুল ইসলাম বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত হয়েছেন। লাইন সম্পাদক পদে ২৭৩ ভোট পেয়ে আব্দুল মালেক (মোমবাতি) নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী ঠা-ু মিয়া (মোটর সাইকেল) পেয়েছেন ১৯৪ ভোট। কার্যকরী সদস্য তিনটি পদে ১ম আব্দুল খালেক (চাকা) ২৮৫ ভোট, ২য় জিয়ারুল ইসলাম (আনারস) ২৬২ ভোট, ৩য় আবুল বাসার (আম) ২১৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী মাসুম (কবুতর) ২০৩ ভোট ও খোকন (রিকশা) ১১৬ ভোট পেয়েছেন।
গাংনী শাখার মোট শ্রমিক ভোটারের সংখ্যা ৬৩৮। এর মধ্যে ৫০৮ জন ভোটাধিকার (পোল) প্রয়োগ করেছেন। নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভাপতি মেহেরপুর জেলা মোটরশ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি আহসান হাবীব সোনা, সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান, লাইন সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মনি, মকবুল হোসেন মাস্টার, মাহবুবুর রহমান, সাফিরুল ইসলামসহ ভোটগ্রহণ সংশ্লিষ্টরা সুষ্ঠু পরিবেশে ভোটগ্রহণ করেন। গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন, পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) কাফরুজ্জামান, গাংনী প্রেসক্লাব সভাপতি রমজান আলী, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ-উদ-দৌলা রেজাসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ভোট পর্যবেক্ষণ করে সন্তোষ প্রকাশ করেন।
এদিকে সকাল আটটায় ভোট গ্রহণের আগে থেকেই প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা কেন্দ্রে ভিড় করেন। স্ব স্ব প্রার্থীর পক্ষে দিনব্যাপী মিছিল ও প্রতীক প্রদর্শনের মধ্যদিয়ে এক উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়। গাংনী থানা পুলিশের একটি দল সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করে। প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের হইচই আনন্দ-উল্লাসের মধ্যেও শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়। প্রতিটি ব্যালট পেপার মাইকে গণনার মধ্যদিয়ে রাতে ফলাফল প্রকাশ করেন নির্বাচন কমিশন। বিজয়ী সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও যুগ্ম সম্পাদককে ফুল ও টাকার মালা গলায় দিয়ে বরণ করেন তাদের সমর্থকরা। রাতেই বিভিন্ন এলাকার ভোটার ও পরাজিত প্রার্থীদের সাথে দেখা করতে যান বিজয়ী প্রার্থীরা। গাংনী শাখা কার্যালয়ে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ করা হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.