গাংনী বিএম কলেজে শিক্ষকের রোষানলে জিপিএ-৫ বঞ্চিত এক শিক্ষার্থী 

গাংনী প্রতিনিধি: পিকনিকের চাঁদার টাকা না দেয়ায় বাস্তব প্রশিক্ষণ বিষয়ে কম নম্বর দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মেহেরপুর গাংনী টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউটের (বাঁশবাড়িয়া) আব্দুস সালাম নামের এক শিক্ষার্থী। গত ২৩ জুলাই কারিগরি শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক প্রকাশিত এইচএসসি (বিএম) ফলাফলে ওই ছাত্র অন্যান্য বিষয়ে এ+ পেলেও তাকে বাস্তব প্রশিক্ষণ বিষয়ে অল্প নম্বর দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে আব্দুস সালাম সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দফতরে অভিযোগপত্র প্রেরণ করেছেন।

লিখিত অভিযোগে প্রকাশ, শিক্ষার্থী আব্দুস সালাম ২০১৭ সালে গাংনী টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউট থেকে কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত এইচএসসি (বিএম) পরীক্ষায় অংশ নেয়। যার রেজি. নং- ৮৫৪৫৩৭, রোল নং- ১৫৪৫৩৮। অন্যান্য পরীক্ষায় তার জিপিএ-৫ ফলাফল ছিলো। তবে এইচএসসিতে বাস্তব প্রশিক্ষণ বিষয়ে শিল্প কারখানা পরিদর্শনের চাঁদা হিসেবে ৫শ টাকা করে চাঁদা উত্তোলন করেন সংশ্লিষ্ট ট্রেড শিক্ষকরা। কিন্তু শিল্প-কারখানা পরিদর্শন না করে পিকনিক করার উদ্যোগ নেয়ায় ওই টাকা ফেরত নেয় আব্দুস সালামসহ ৫ ছাত্র। এতে রাগান্বিত হয়ে তাকে অল্প সংখ্যক নম্বর দেয়ার হুমকি দেন কয়েকজন শিক্ষক। ফলে প্রকাশিত ফলাফলে জিপিএ-৫ না হয়ে এ মাইনাস পেয়েছে। এদিকে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই এবং শিল্প কারখানায় বাস্তব প্রশিক্ষণ বিষয়ে পরিদর্শন না করেই শিক্ষাবোর্ডকে পরিদর্শন দেখানো হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছে ওই শিক্ষার্থী। এ প্রসঙ্গে অভিযুক্ত সহকারী প্রভাষক শরিফুল ইসলাম বলেন, কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফিদা হাসান দীর্ঘদিন যাবত প্রতিষ্ঠানে আসেন না। কোনো অঘটন ঘটতে পারে বিধায় শিল্প কারখানায় পরিদর্শনে যাওয়া হয়নি। সালামসহ ৫ জন টাকা ফেরত নেয়। একজন মেধাবী ছাত্র শিক্ষকের রোষানলে পড়ে জিপিএ-৫ বঞ্চিত হয়েছে এমন প্রশ্নে উত্তর এড়িয়ে যান তিনি। গাংনী টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফিদা হাসানের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা হলেও তাকে মোবাইলফোনে পাওয়া যায়নি। গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ-উজ জামান জানান, ভুক্তভোগী ছাত্রের অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *