গাংনীর ৪৬টি হাট-বাজারের ইজারা সম্পন্ন : রাজস্ব আয় বেড়েছে গড়গড়া ২৩ ভাগ

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ৪৬টি হাট-বাজার ইজারা নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে চলা উত্তেজনার অবসান ঘটেছে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সুষ্টু-সুন্দর পরিবেশে ইজারা নিলাম (টেন্ডার) সম্পন্ন হয়। এতে গত কয়েক বছরের মধ্যে এবারের নিলামে রেকর্ড পরিমাণ রাজস্ব আয় বেড়েছে বলে দাবি করা হলেও সকলের জন্য দরপত্র দাখিলের পরিবেশ নিয়ে প্রশ্ন উঠে। যদিও গড়গড়া ২৩ শতাংশ বৃদ্ধি দেখিয়ে ইজারাদার চূড়ান্ত করায় রাজশ্ব বেড়েছে। আগামী বাংলা ১৪২৩ সালের ইজারায় রাজস্ব আয় দাঁড়িয়েছে ৮৫ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। যা গত বছরের চেয়ে প্রায় ২৩ ভাগ বেশি।
গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের মালিকাধীন বাংলা ১৪২৩ সনে এ উপজেলার ৪৬টি হাট-বাজারার ইজারা নিলামের দরপত্র জমাদানের শেষ দিন ছিলো বৃহস্পতিবার। ইজারা কেন্দ্র করে স্থানীয় ৩ গ্রুপের মধ্যে গত কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা চলছিলো। তবে শেষ পর্যন্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ওসির দৃঢ়তায় তা সুষ্ট পরিবেশে সম্পন্ন হয়। সমঝোতার মধ্য দিয়ে হাট-বাজার ইজারা পাওয়ার প্রক্রিয়া চললেও তা শেষ পর্যন্ত ভেস্তে যায়। ফলে প্রতিদ্বন্দী দরদাতাদের চেয়ে বেশি দর দিয়ে নিলামের অংশ গ্রহণের প্রতিযোগীতা শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে গাংনী থানার ওসি আকরাম হোসেন, দরপত্র দাখিলকারীদের কয়েকজন, নিলাম বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য ও সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে টেন্ডার বাক্স খোলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল আমিন। গত কয়েক বছরের মতো এবারো সর্বোচ্চ দর দিয়ে বামুন্দী-নিশিপুর গো হাটের ইজারা পেয়েছেন মিরপুরের কামাল হোসেন। দরপত্র দাখিল করা দু জনের মধ্যে সর্বোচ্চ ৬২ লাখ ৪১ হাজার টাকা দর দিয়ে কামাল হোসেন নতুন বছরের জন্য ইজারা পান। যার ১৪২২ সালের মূল্য ছিলো ৬০ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা।
বাকি হাট-বাজারগুলোর প্রত্যেকটিতে এবারে দরের চমক ছিলো। গাংনী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু ২০টি ও যুবলীগ নেতা আশিকুর রহমান আকাশ নিজ নামে ৩টি হাটের ইজারা পেয়েছেন। এই হাটগুলোতে গত বছরের চেয়ে কয়েকগুন বেশি দরে তারা নিলাম পেয়েছেন। যা ছিলো এবারের নিলামের প্রধান চমক। শুধু ওই দুজনের হাট-বাজার গুলোতে নয়, প্রতিটি হাট-বাজারের দর ১৪২২ সালের চেয়ে এবারে ৩-১০ গুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে।
৪৬টি হাটের ১৪২২ সনে রাজস্ব আয় ছিলো ৬৯ লাখ ৯৯ হাজার ৫০১ টাকা। গত ৩ বছরের গড় হিসাবে ১৪২৩ (আগামী ১ বৈশাখ থেকে) সালে ৪৬টি হাটের ইজারা মূল্য গিয়ে দাঁড়ায় ৭১ লাখ ৮৫ হাজার টাকায়। কিন্তু সব জল্পনা-কল্পনা ছাপিয়ে এবারের নিলামের পর রাজস্ব আয় বৃদ্ধি পাওয়ায় তৃপ্তির ঢেকুর তোলেন উপজেলা প্রশাসন সংশ্লিষ্টরা। নিলাম হওয়া হাট-বাজার থেকে আগামী ১৪২৩ সলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের রাজস্ব আয় দাঁড়িয়েছে ৮৫ লাখ ৮৯ হাজার টাকা।
এ ব্যাপারে গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল আমিন জানান, ফেয়ার টেন্ডারের ফলে রাজস্ব আয় বৃদ্ধি পেয়েছে। যা সরকারের রাজস্ব আয়ে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। সুষ্টু পরিবেশে নিলাম প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে অন্যান্য ক্ষেত্রেও সরকার আরো বেশি লাভবান হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। এখন চলছে বাংলা ১৪২২ সাল। এ সালের হাট-বাজার ইজারা মালিকরা আগামী ৩০ চৈত্র পর্যন্ত স্ব স্ব হাট-বাজারের খাজনা আদায় করবেন। বৃহস্পতিবারের নিলাম হওয়া হাট-বাজার মালিকরা আগামী পয়লা বৈশাখ থেকে খাজনা আদায় শুরু করবেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *