গাংনীর বাঁশবাড়িয়ায় বৃদ্ধার জমি দখলের অভিযোগ

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনীর বাঁশবাড়িয়া গ্রামের বৃদ্ধা হাদেসা খাতুনকে ভিটেছাড়া করার অভিযোগ উঠেছে। শরিকদের কয়েকজনের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ করায় রোষানলে পড়েছেন হাদেসা খাতুন। এমন অভিযোগ তুলে তিনি গাংনী থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন ওই বৃদ্ধা।

হাদেসা খাতুন (৭৫) ও তার পরিবারের অভিযোগ, বাঁশবাড়িয়া দক্ষিণপাড়ার মৃত পাতান মল্লিকের দুই মেয়ের মধ্যে হাদেসা খাতুন ছোট। কোনো ছেলে সন্তান ছিলো না। পাতান মল্লিক মারা যাওয়ার সময় প্রায় ৮৪ বিঘা জমির মালিক ছিলেন। যার ওয়ারিশ হন দুই মেয়ে। তার অবর্তমানে একমাত্র ভাই ভোমর মল্লিক জমির ভোগ দখল ও দুই মেয়েকে লালন করতেন। পাতান মল্লিকের মেয়ে হাদেসা খাতুন এক কন্যা সন্তানসহ ডির্ভোস হয়। তখন তিনি পিতার বাড়িতে ফিরে যান। কিন্তু পৈত্রিক সম্পত্তি বুঝে পাননি। ওই জমি পর্যায়ক্রমে ভোমর মল্লিকের নাতি আবু বক্করের ভোগ দখলে থাকে। বর্তমানে আবু বক্করের ৬ ছেলে ও গ্রামের কয়েকজনের ভোগ দখলে রয়েছে। হাদেসা খাতুন ও তার বোন পেয়েছেন সামান্য কিছু জমি। পৈত্রিক ওই সম্পত্তির ভোগ দখল পেতে তিনি মামলা দায়ের করেছেন। নিম্ন আদালতের রায়ের পর মামলাটি উচ্চাদালতে রয়েছে।

এদিকে জমি উদ্ধারে মামলা করে বিপাকে পড়েছেন হাদেসা খাতুন ও তার পরিবার। ভোমর মল্লিকের নাতি আবু বক্করের ছেলে ইসমাইল হোসেন ও তার অপর ৫ ভাই হাদেসা খাতুনের পৈত্রিক বাড়িঘরে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছেন। সেখানে বসবাস করতে বাধা দিচ্ছেন। কিছুদিন আগে তাকে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়েছিলো। তিনি এখন জামাই বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন। বাড়িতে না উঠতে বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি দেখানো হচ্ছে। প্রতিকার চেয়ে তিনি আবারো গাংনী থানায় অভিযোগ করেছেন। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অপর পক্ষের উসমান মিয়া।

 

 

Leave a comment

Your email address will not be published.