খুলনায় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদককে গুলি করে হত্যা

 

স্টাফ রিপোর্টার: খুলনা জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক ফুলতলা উপজেলা চেয়ারম্যান সরদার আলাউদ্দীনকে দুর্বৃত্তরা গুলি ছুড়ে হত্যা করেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ফুলতলার দামোদর ইউনিয়নের নতুন হাট এলাকায় নিজ বাড়ির নিচতলায় তার কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নওশের নামের একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সরদার আলাউদ্দীনের বাবা আবুল কাশেম দামোদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান থাকাকালীন ১৯৯৭ সালের দিকে ফুলতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন। বাবা মারা যাওয়ার পর বড় ভাই আবু সাঈদ বাদল ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তাঁকেও সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে নিজ কার্যালয়ে বসে কাজছিলেন সরদার আলাউদ্দীন। এ সময় শাদা পোশাকের পাঁচ-ছয়জন লোক ‘ডিবি’ পরিচয় দিয়ে কার্যালয়ে ঢোকে। তারা সামনে থেকে তাঁর মাথায় গুলি করে। তাঁদের এলোপাতাড়ি গুলিতে পাশে থাকা নওশের নামের একজন গুলিবিদ্ধ হন। গুলি করেই পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই আলাউদ্দীন মারা যান।

খুলনার পুলিশ সুপার নিজাম উদ্দীন মোল্লা বলেন, দুটি মোটরসাইকেলে করে ডিবির মতো পোশাক পরে দুর্বৃত্তেরা ঘরে ঢুকে খুব কাছ থেকে সরদার আলাউদ্দীনকে গুলি করে। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। তাঁর অনেক শক্রু আছে। প্রাথমিকভাবে ওই সূত্র ধরেই ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *