কর্তৃপক্ষের নীরবতায় আশকারা পাচ্ছে দখলদাররা : অর্থের বিনিময়ে হাত বদলের অভিযোগ

আলমডাঙ্গায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের মূল্যবান সম্পত্তি একের পর এক বেদখল
স্টাফ রিপোর্টার: আলমডাঙ্গা শহরে অবস্থিত পানি উন্নয়ন বোর্ডের মূল্যবান সম্পত্তি দখল করে তা লাখ লাখ টাকার বিনিময়ে হাত বদলের অভিযোগ উঠেছে। অবৈধভাবে বিক্রি হওয়া সম্পত্তিতে দিনের বেলা জনসম্মুখে নির্মাণ করা হচ্ছে পাকা স্থাপনা। প্রশাসনের দায়িত্বহীনতার কারণে এ ধরনের অবৈধ দখলদারত্ব ও অর্থেন লেনদেন বেড়ে চলেছে বলে সচেতনমহলের ধারণা।
জানা যায়, আলমডাঙ্গা শহরের ওয়াবদা কলোনি, পশুহাট ও জিকে সেচপ্রকল্পের শ’ শ’ কোটি টাকার সম্পত্তি ইতোমধ্যে প্রভাবশালীরা দখল করে নিয়েছেন। এবার শহরের অন্যান্য স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সম্পত্তিও দখল করে তা চড়া মূল্যে হাত বদলের ঘটনা প্রকাশ্যে ঘটে চলেছে। শহরের পশুহাট এলাকায় (মা ক্লিনিকের নিকটে) পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রায় ৪ শতক জমি অবৈধভাবে দখল করে সম্প্রতি তা মোটা টাকার বিনিময়ে হাত বদলের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বর্তমানে ওই সম্পত্তিতে আরসিসি ঢালাই দিয়ে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে। এমন অভিযোগ পেয়ে গত শুক্রবার দৈনিক মাথাভাঙ্গার পক্ষ থেকে ঘটনাস্থলে সরেজমিনে গেলে অভিযোগের সত্যতা মেলে। দেখা যায় সেখানে বেশ কয়েকজন নির্মাণ শ্রমিক কাজ করছিলেন। হেড মিস্ত্রি হিসেবে পরিচয়দানকারী নিজের নাম জানালেন আতিয়ার রহমান। কে এই স্থাপনা নির্মাণ করছেন? এ প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুন। তবে নির্মাণাধীন স্থাপনার নিকটে তিনি আসেন না বলে জানানো হয়। এ সম্পর্কে মোবাইলফোনে যোগাযোগ করা হলে আলমডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুন বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের পুকুরটি শুধু তিনি দেখাশোনা করেন। আর স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে যে সম্পত্তিতে সেটি দলীয় ছেলেদের। ওরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের পতিত ওই জমিতে খামার নির্মাণ করছে।
তবে অভিযোগকারীরা জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে ওই সম্পত্তি মোটা টাকায় হাত বদল করা হয়েছে। আলমডাঙ্গার কালিদাসপুর ইউনিয়নের হাফিজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি ওই জমি কিনে বাড়ি নির্মাণ করছেন। অভিযোগকারীরা আরও জানিয়েছেন, ইতঃপূর্বেও পানি উন্নয়ন বোর্ডের সম্পত্তি একই ব্যক্তি মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে পশুহাট মসজিদের মোয়াজ্জিন উপজেলার এলাহিনগর গ্রামের হায়েত আলীর নিকট হস্তান্তর করেন। এখন হায়েত আলী ওই অবৈধ দখলকৃত জমিতে বাড়িঘর নির্মাণ করে বসবাস করছেন।
এদিকে, ওই অবৈধভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সম্পত্তি দখল ও হাত বদলের ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত শুক্রবার দুপুরের দিকে স্থানীয় ২ গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে বলেও এলাকাবাসী জানান। ওই ঘটনায় জীবন নামের এক যুবক ডেগারবিদ্ধ হয়েছে বলে জানা গেছে।
এলাকা ঘুরে জানা যায়, আলমডাঙ্গা শহরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের শ’ শ’ কোটি টাকার সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করা হয়েছে। এখনও প্রতিনিয়ত প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায়, প্রত্যক্ষ না হলেও পরোক্ষভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করা হচ্ছে। এমনকি জিকে ক্যানেলের ইনসাইডও দখল হচ্ছে দেদারসে। সেচ প্রকল্পের মেন ক্যানেলে মাটি ভরাট করে গড়ে তোলা হচ্ছে বসতবাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। পানি উন্নয়ন বোর্ডের কিছু অসৎ কর্মকর্তার সীমাহীন দায়িত্বহীনতার কারণে এমন অবৈধ দখলদারত্ব চরম সীমা অতিক্রম করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তাদের দায়-দায়িত্বহীন আচরণে প্রভাবশালী দখলদাররা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলে মন্তব্য করেছেন এলাকার সচেতনমহল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *