ঐশীকে ঢাকা কেন্দ্রীয় জেলহাজতে প্রেরণ

বয়স প্রায় ১৯ বছর : আজ রিপোর্ট দেবেন চিকিত্সকরা

স্টাফ রিপোর্টার: পুলিশ ইন্সপেক্টর মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমান হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতারকৃত মেয়ে ঐশী রহমানের বয়স প্রায় ১৯ বছর বলে মেডিকেল রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। গতকাল শনিবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ ফরেনসিক বিভাগে ঐশীর বয়স নির্ধারণের পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। রিপোর্টে তার বয়স প্রায় ১৯ বছর বলে উল্লেখ করা হয়। এর আগে তার শারীরিক ও এক্স-রে পরীক্ষা করা হয়। সকল পরীক্ষায় তার বয়স প্রায় ১৯ বছর বলে প্রমাণ পান চিকিত্সকরা। চাঞ্চল্যকর পুলিশ দম্পতি খুনের ঘটনায় গ্রেফতার তাদের মেয়ে ঐশী রহমানকে আদালতের নির্দেশে গাজীপুরের কোনাবাড়ি কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে আদালতের আদেশের কপি পাওয়ার পর কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ ঐশীকে গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

জানা গেছে, গতকাল সকাল পৌনে ১০টার দিকে ওই কেন্দ্র থেকে ঐশীকে নিয়ে ঢাকায় রওনা দেন কেন্দ্রের প্রবেশন অফিসার মো. আবু বকর সিদ্দিক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক আবু আল খায়ের মাতুব্বর। ঐশীর সাথে তাদের বাসার গৃহকর্মী খাদিজা খাতুন সুমিকেও কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

2nd2

গাজীপুর জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক বেগম লুত্ফুন্নেসা জানান, সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ঐশীকে কারাগারে পাঠানোর বিষয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কিশোরী উন্নয়ন কেন্দে আসে। শাদা ওড়না, চেক শার্ট ও জিন্স প্যান্ট পরা অবস্থায় ঐশী ওই উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে বের হয়। ওই কেন্দ্রে আসার সময় যে পোশাক পরিহিত ছিলো সে পোশাক পরেই ঐশী ও সুমি ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয়। আদালতের আদেশক্রমে ঐশীকে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও পরে সেখান থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। উন্নয়ন কেন্দ্রে থাকার সময় তার সাথে পরিবারের কেউ দেখা করতে আসেননি বলেও জানান সেখানকার কর্মকর্তারা। ঢাকা মেডিকেলে ঐশী ও সুমির বয়স প্রমাণের জন্য কিছু পরীক্ষা করার পর ঐশীকে কারাগারে ও সুমিকে গাজীপুরে কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়।

স্কুলের নথি অনুযায়ী ঐশীর বয়স ১৮ বছরের কম হওয়ায় গত ২৪ আগস্ট তাকে কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়। তবে এরপর খুলনায় জন্ম নেয়া ঐশীর জন্ম সনদ দাখিল করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবু আল খায়ের মাতুব্বর গত ২৯ অগাস্ট ঐশীকে কারাগারে পাঠানোর আবেদন করেন। খুলনার একটি ক্লিনিকের জন্ম সনদ সম্বলিত ওই আবেদন যাচাই করে ঢাকা মহানগর হাকিম আনোয়ার সাদাত ঐশীকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। ওই জন্ম সনদ অনুযায়ী ঐশীর বয়স ১৮ বছরের বেশি।

Leave a comment

Your email address will not be published.