একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির আবেদনে এসএমএস ওয়েবপেজে অন্তহীন দুর্ভোগ

 

স্টাফ রিপোর্টার: একাদশ শ্রেণীতে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন, এসএমএস পাঠিয়ে তিন দিনেও ফিরতি এসএমএস পাওয়া যায় না। ফিরতি এসএমএসে একটি ট্রানজেকশন নম্বর আসার কথা। এ নম্বর ছাড়া ফরম পূরণ করা যায় না। আবার ট্রানজেকশন নম্বর পাওয়ার পরও ওয়েব পেজে গিয়ে ফরম পূরণ করা যায় না। দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পরও ফরম কম্পিউটার স্ক্রিনে আসে না। এমন নানা সমস্যার কারণে আবেদন নিয়ে মহাদুর্ভোগে রয়েছেন তারা।

মহসিন নামে এক শিক্ষার্থী জানান, তার রোল নম্বর ৫০২৮৬৮। এ নম্বরের বিপরীতে রেজিস্ট্রেশন নম্বরসহ এসএমএস পাঠিয়েছেন বৃহস্পতিবার রাতে। এসএমএসে আবেদন ফি বাবদ ১৫০ টাকা কেটে নিয়েছে। ফিরতি এসএমএস এসেছে। কিন্তু অনলাইনে ফরম আসে না। এ কারণে আবেদন করতে পারছেন না। এভাবে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এসএমএস এবং অনলাইনে ফরম খোলা সংক্রান্ত জটিলতার কথা জানিয়েছেন শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা।

সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ হচ্ছে কারিগরি বোর্ডের শিক্ষার্থীদের। ৭৮০২০৬ রোল নম্বরধারী জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার আবেদনের জন্য এসএমএ করা হয়েছে। এসএমএসে আবেদন ফি কেটে নেয়া হয়েছে। কিন্তু ট্রানজেকশন নম্বরসহ ফিরতি এসএমএস রোববারও পাওয়া যায়নি। ফলে আবেদন করতে পারছেন না এই প্রার্থী। নাম প্রকাশ না করে এমনিভাবে একাধিক প্রার্থী আবেদন কার্যক্রমে জটিলতার কথা জানিয়েছেন। এর বেশিরভাগই এসএমএস সংক্রান্ত। তবে এরপরও ভর্তির আবেদন কার্যক্রম সমানতালে চলছে। রোববার বিকাল পৌনে ৬টা পর্যন্ত সাড়ে ৪ লাখ আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে সাড়ে ৩ লাখ আবেদন পড়েছে অনলাইনে। এসএমএসে জমা পড়েছে এক লাখ।

জানতে চাইলে ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক ড. আশফাকুস সালেহীন বলেন, যদি কেউ এসএমএস পাঠাতে ভুল করেন, তাহলে তিনি ফিরতি এসএমএস পাবেন না। তবে এ ক্ষেত্রে আবেদন ফি কেটে নেয়ার কথা নয়। যদি কারও এসএমএসে টাকা কেটে যায় এবং তিনি এসএমএস না পান, তাহলে তারা ভর্তি সংক্রান্ত হেল্পলাইনে ফোন করে সমস্যা জানিয়ে সমাধান নিতে পারবেন। হেল্পলাইনের নম্বর ভর্তির ওয়েবসাইটে আছে। তিনি আরও বলেন, এছাড়া আমার সঙ্গে কেউ ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করলে আমিও সমাধান বাতলে দেব। সমস্যা হলে রোল নম্বর ধরে বিস্তারিত তথ্য জেনে দেবে। কারিগরি বোর্ডের ক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা আছে বলে তিনি স্বীকার করেন।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় অনলাইন এবং এসএমএসে একযোগে আবেদন গ্রহণ শুরু হয়। এবার দ্বিতীয়বারের মতো অনলাইন ও এসএমএসে আবেদন নিচ্ছে সরকার। বুয়েটের কারিগরি সহায়তায় এই আবেদন গ্রহণ কার্যক্রম সম্পন্ন হচ্ছে। এবার অনলাইনে একসঙ্গে ১০টি এবং এসএমএসে ১০টি কলেজের জন্য আবেদন করা যাচ্ছে। অনলাইনে একটি আবেদনের জন্য ১৫০ টাকা নেয়া হবে। তবে এসএমএসে একটি আবেদনের জন্য ১২০ টাকা নেয়া হবে। সেই হিসাবে ১০টি আবেদনের জন্য ১২০০ টাকা লাগবে। ৯ জুন রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ১৪ লাখ ৭৩ হাজার ৫৯৪ জন পাস করেছেন। সাধারণ, কারিগরি ও মাদরাসা বোর্ড থেকে এবারসহ ৩ বছর পাস করা প্রার্থীরা আবেদনের সুযোগ পাচ্ছে। আর বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চার বছর ধরে পাস করা এসএসসি প্রার্থীরা আবেদনের সুযোগ পাচ্ছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *