আলমডাঙ্গা সাব-রেজিস্ট্রি অফিস চত্বর থেকে প্রায় দেড় লাখ টাকা পকেটমারের অভিযোগ

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গা সাব-রেজিস্ট্রি অফিস চত্বরে গিয়ে প্রায় দেড় লাখ টাকা খোয়ালেন কেদারনগর গ্রামের আব্দুস সাত্তার। এ ব্যাপারে আব্দুস সাত্তার বড় গাংনীর অবসরপ্রাপ্ত এক বিজিবি সদস্যকে দোষারোপ করলেও আত্মীয়স্বজনসহ অনেকের সন্দেহের তীর আব্দুস সাত্তারের দিকেই।
জানা গেছে, আলমডাঙ্গা উপজেলার বেলগাছি ইউনিয়নের কেদারনগর গ্রামের মৃত মোজাহার ম-লের ছেলে এলেম আলী বেশ কয়েক বছর ধরে মালয়েশিয়া প্রবাসী। সম্প্রতি তিনি জমি কিনার জন্য স্ত্রী দিলারা খাতুনের নিকট টাকা পাঠান। গতকাল বুধবার জমির মালিককে বকেয়া টাকা দিয়ে জমি রেজিস্ট্রি করে নেয়ার কথা ছিলো। কথামত দিলারা খাতুন ভাসুর আব্দুস সাত্তারকে (৫৮) সাথে নিয়ে গতকাল আলমডাঙ্গা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে যান। ১ লাখ ৪৪ হাজার টাকা রাখেন ভাসুরের নিকট। দুপুরে একটু ঘুরে ফিরে আব্দুস সাত্তার ভাইবউকে জানান, তার পকেটমেরে টাকা নিয়ে চলে গেছে কেউ। এক পর্যায়ে আব্দুস সাত্তার বড় গাংনীর অবসরপ্রাপ্ত এক বিজিবি সদস্যকে দোষারোপ করেন। কিন্তু হালে পানি পায়নি। বরং ওল্টো আত্মীয়স্বজনসহ অনেকেই আব্দুস সাত্তারকেই সন্দেহ করছে। তিনি নিজেই টাকা আত্মসাৎ করে পকেটমারের নাটক সাজিয়েছে বলে এলাকার অনেকেই মন্তব্য করেছেন। দিলারা খাতুন বলেছেন, তিনি ভাসুরের নিকট টাকা দিতে চাননি, তিনি এক প্রকার জোরাজুরি করেই টাকা চেয়ে নিজের কাছে রাখেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *