আলমডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৩ গাছ অবৈধভাবে বিক্রির অভিযোগ

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরের ৩টি গাছ কোনো প্রকার নিয়ম নীতি ছাড়াই অবৈধভাবে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসারের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। গতকাল রোববার সকালে বিক্রি করা ৩টি গাছ কেটে নেয়ার সময় সকলের নজরে পড়ে। অবৈধভাবে ইচ্ছেমাফিক গাছ কেটে বিক্রি করার ঘটনাটি মুহূর্তে সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে।
সরজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, সকল প্রকার নিয়ম নীতি উপেক্ষা করে টেন্ডার ছাড়াই গাছ ৩টি বিক্রি করা হয়েছে। গাছ বিক্রির নিয়ম নীতি থাকলেও স্থানীয় বন বিভাগের অনুমতিপত্র নেয়া হয়নি। আলমডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. মাসুদ রানা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হারদীর চত্বরের ৩টি কদম গাছ সাড়ে ৮ হাজার টাকায় বিক্রি করেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গতকাল রোববার সকালে ওই গাছের ক্রেতা ওসমানপুরের গাছ ব্যবসায়ী ফরজ আলী গাছ তিনটি কাটতে শুরু করলে সকলের নজড়ে পড়ে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টাফ ও জনসাধারণের মধ্যে শুরু হয় নানা গুঞ্জন।
গাছ ব্যবসায়ী ফরজ আলী বলেন, তিনটি কদমগাছ সাড়ে ৮ হাজার টাকায় কিনেছেন। তাই গাছ কাটার শ্রমিক নিয়ে গাছ কাটতে এসেছেন। টেন্ডারের মাধ্যমে কিনেছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন টেন্ডার ছাড়াই কিনেছেন।
আলমডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাক্তার মাসুদ রানা বলেন, এই ৩টা গাছ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জায়গা নোংড়া করছিলো। আর গাছ তিনটি কেটে নতুন করে গাছ লাগানো হবে। টেন্ডার করতে গেলে অনেক সময় লাগে। আর আমি এমন কোনো গাছ কাটছি না। তিনটি কদম গাছ টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করতে গেলে অনেক খরচ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *