আলমডাঙ্গায় রাস্তার ওপর পশুহাট বসায় দীর্ঘ যানজট

আলমডাঙ্গা ব্যরো: আলমডাঙ্গা পশুহাটের অবস্থা গতকাল বুধবার ছিলো করুণ। লালব্রিজ মোড় থেকে আলমডাঙ্গা রেলস্টেশন, কামালপুর, স্বর্ণকারপট্টি ও কালিদাসপুর মোড় পর্যন্ত সব রাস্তাই ছিলো শ্যালোইঞ্জিনচালিত আলমসাধু, নসিমন ও করিমনের দখলে। রাস্তার ওপর হাট বসায় সাধারণ মানুষ কোনোভাবেই রাস্তা পারাপার হতে পারেনি। অনেকে মূল সড়ক ছেড়ে পার্শ্ববর্তী গ্রাম ঘুরে আলমডাঙ্গায় এসেছেন। সারাদিনই ছিলো জনদুর্ভোগ। গরু বিক্রেতারা তাদের গরু রাস্তার ওপর রেখে বিক্রির জন্য সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়েছিলেন। অন্যদিকে গরুবোঝাই আলমসাধু, নসিমন, করিমনের ভিড়ে রাস্তায় এক হাত জায়গাও ফাঁকা ছিলো না। পায়ে হাঁটা ও অন্য গাড়ি আলমডাঙ্গা বাজারে কোনোভাবেই ঢুকতে পারেনি। গরুর হাটের জায়গা অত্যন্ত ছোট হওয়ায় শত বছরের পুরোনো রেলব্রিজটিও বর্তমানে হুমকির মুখে। গরু-মোষ রেললাইনের একবারেই পাশে সারিবদ্ধভাবে রাখা হয়। এতে রেললাইনের মাটি সরে যাচ্ছে। যেকোনো সময় রেললাইন ধসে যেতে পারে বলে স্থানীয়রা অভিমত ব্যক্ত করেছেন। কয়েক মাস আগে রেললাইনের ওপর মোষ রেখে বিক্রির সময় দুটি মোষ মারা যায়। প্রতি বছর কোটি টাকার সরকারি ডাকা হাটের অদ্যবধি কোনো উন্নয়ন হয়নি। ৪ রাস্তার মোড়ে প্রতি বুধবার প্রতিনিয়তই হাট বসে। রোগী বা জরুরি কোনো কাজে যদি বুধবার পশুহাটের রাস্তা পার হতে হয় তাহলে কমপক্ষে দু থেকে তিন ঘণ্টা লেগে যায়। মহিলাদের তো ওই রাস্তা দিয়ে আসার কোনো সুযোগই নেই। অনেকে পৌর কর্তৃপক্ষ ও হাট মালিককে বারবার তাগিদ দেয়ার পরও কোনো ফল হয়নি। রাস্তা ফাঁকা ও শত বছরের পুরোনো লালব্রিজটি রক্ষার জন্য পশুহাট অন্য স্থানে বসাতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছে এলাকাবাসী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *