আলমডাঙ্গায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের অভিশাপ থেকে রক্ষা পেলো ৯ম শ্রেণির ছাত্রী

 

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের অভিশাপ থেকে রক্ষা পেলো ৯ম শ্রেণির ছাত্রী আলেয়া খাতুন। গতকাল শুক্রবার ধুমধামের সাথে বিয়ের আয়োজন করা হয়। এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার উপস্থিত হয়ে আলেয়ার জেএসসি সার্টিফিকেট দেখে বয়স না হওয়ার কারণে বিয়ে বন্ধ করে দেন।

জানা গেছে, আলমডাঙ্গা পৌর ৬ নং ওয়ার্ড গোবিন্দপুর গ্রামের আলী হোসেনের ৯ শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ে আলেয়া খাতুনের বিয়ের আয়োজন করে ৭ নং ওয়ার্ড গোবিন্দপুর গ্রামের আব্দুস সুবহানের ছেলে শামীম হোসেনের সাথে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে বিয়ে সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিলো। বাল্যবিয়ের সংবাদ শুনে দুপুরে আলী হোসেনের বাড়িতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজাদ জাহান ও আলমডাঙ্গা থানার এসআই সাখাওয়াতসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হাজির হন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলী হোসেনকে মেয়ের বিয়ের বয়স হয়েছে কি-না জিজ্ঞাসা করলে সে পৌর সভা থেকে নিয়ে আসা জন্ম নিবন্ধনের কাগজ দেখান। সেখানে রীতি মতো আলেয়ার বয়স ১৮ বছর এক মাস করা আছে। তখন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলেয়ার জেএসসি পরীক্ষার সার্টিফিকেট দেখতে চান। আলেয়ার জেএসসি পরীক্ষার সাটিফিকেটে বয়স না হওয়ার কারণে বিয়ে বন্ধ করে দেন। আলেয়া এম সবেদ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী তার প্রকৃত জন্ম ২০০০ সালে ১৭ সেপ্টেম্বর। এ সময় উপজেলা লোকমর্চার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *