আলমডাঙ্গার জামুজামিতে মাছ চুরির অভিযোগে অর্থদণ্ড ২ লাখ টাকা

 

জামজামি প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গার মধুপুরে মাছ চুরির অভিযোগে একজনকে দু লাখ টাকা জরিমানা করেছেন স্থানীয় মাতবররা। তাদের অভিযোগ মধুপুর গ্রামের আশাবুল ইসলাম মাছ চুরির সময় হাতেনাতে আটক হন। এ সময় মাছচাষি একই গ্রামের বাদল রশীদ আহত হয়েছেন আশাবুলের হাতে। বাদলের চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে চোর সন্দেহে আশাবুলকে ধরে প্রায় দু ঘণ্টা গাছের সাথে বেঁধে রেখে মারপিট করেন স্থানীয়রা। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যারাতে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে মাছ চুরির অভিযোগে মণ্ডল-মাতবরদের দ্বারা ২ লাখ টাকা জরিমানা করার বিধান আছে কি-না তা নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মাছ চুরির অভিযোগে আলমডাঙ্গা মধুপুরের আশাবুলকে ধরে গাছের সাথে বেধে মারপিট করেছে এলাকাবাসী। গ্রামের নবীছদ্দিন মণ্ডলের ছেলে মাছচাষি বাদল রশিদের দাবি তার পুকুরে মাছ চুরি করতে গিয়ে হাতেনাতে আটক হয় আশাবুল। এ সময় মাছচাষি বাদল পুকুরে গেলে তার ওপর চড়াও হয় আশাবুল। বাদলকে মেরে আহত করে আশাবুল। বাদলের চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে একই গ্রামের জলিল মেম্বারের ছেলে আশাবুলকে আটক করে। গাছের সাথে বেধে প্রায় দু ঘণ্টা মারপিটও করা হয়। পরে স্থানীয় মণ্ডল-মাতবররা উপস্থিত হয়ে সালিস বৈঠকের মাধ্যমে চুরির অভিযোগে ২ লাখ টাকা জরিমানা করেন। সামান্য মাছ চুরির অভিযোগে আটক করে গাছের সাথে বেঁধে মারপিট করার পর জরিমানার বিষয়টি নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন। তাদের জরিমানার এখতিয়ার আছে কি-না তা নিয়েও প্রশ্ন অনেকের।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *