আলমডাঙ্গার ছয়ঘড়িয়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রেমিক জুটি অজানার উদ্দেশে পাড়ি : থানায় অভিযোগ

 

মোমিনপুর প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রেমিক-প্রেমিকার অজানার উদ্দেশে পাড়ি দেয়ার ঘটনা প্রায় ঘটছে। আবেগবশত প্রেমে হাবুডুবু খেয়ে যেমন অনেকে স্ত্রী-সন্তান রেখে পালিয়ে যায় তেমনি অনেকে স্বামী-সন্তান রেখে চলে যাচ্ছে। বিবাহিতদের পাশাপাশি অবিবাহিত তরুণ-তরুণীরা ভালোবাসার টানে অজানার উদ্দেশে পাড়ি দেয়ার ঘটনা ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার আইলহাস ইউনিয়নের ছয়ঘড়িয়া গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের বিবাহিত এক প্রেমিক জুটি অজানার উদ্দেশে পাড়ি জমিয়েছে। পরকীয়া প্রেমে আবদ্ধ হয়ে তিন সন্তানের জননী স্বামীর ঘর থেকে নগদ টাকাসহ সোনার গয়না নিয়ে পরকীয়া প্রেমিক দু সন্তানের জনকের হাত ধরে অজানার উদ্দেশে পাড়ি জমিয়েছে। এ ব্যাপারে পরকীয়া প্রেমিকার স্বামী আলমডাঙ্গা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এলাকাসূত্রে জানা গেছে, ছয়ঘড়িয়া গ্রামের বৃন্দাবনপাড়ার সন্ন্যাসী কুমার মালীর স্ত্রী তিন সন্তানের জননী চন্দনা রানী মালীর (২৪) সাথে একই গ্রামের বিমল সরকারের ছেলে দু সন্তানের জনক সুজন সরকারের (২৬) বেশ কিছুদিন আগে গোপনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত সোমবার রাত ৮টার সময় চন্দনা তার পরকীয়া প্রেমিক সুজনের হাত ধরে অজানার উদ্দেশে পাড়ি জমিয়েছে। ঘটনার সময় চন্দনার স্বামী বাড়ির পাশে চায়ের দোকানে গল্প করছিলো। এ সুযোগে চন্দনা তার পরকীয়া প্রেমিক সুজনের সাথে পালিয়ে যায়। চন্দনার দেবর মন্টু কুমার মালী গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে জানান, চন্দনা যাওয়ার সময় ঘড়ে থাকা নগদ ৫০ হাজার টাকা, সোনার গয়নাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে গেছে। এ ব্যাপারে গতকাল মঙ্গলবার সকালে আলমডাঙ্গা থানায় সন্ন্যাসী কুমার মালী আলমডাঙ্গা থানায় লিখিত অভিযোগ প্রেরণ করেছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *