আলমডাঙ্গার গোকুলখালী বাজারে মোটরসাইকলের ধাক্কায় শিশু হুসাইন জখম : ঢাকায় রের্ফাড

 

ভালাইপুর প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গার গোকুলখালী বাজারে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় মাদরাসার ছাত্র শিশু হুসাইন আহমেদ গুরত্বর আহত হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে মাদরাসা ছুটির পর বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি দ্রুতগামী মোটরসাইকেল তাকে ধাক্কা দেয়। আছড়ে পড়ে গুরত্বর আহত হয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকায় রেফার করেন। সে দামুড়হুদা উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রামের মইদুল হোসেনের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, হুসাইন আহমেদ গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে মাদরাসা ছুটির পর বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি দ্রুতগামী মোটরসাইকেল তাকে ধাক্কা দেয়। সে গুরত্বর আহত হয়। এদিকে স্থানীয়রা মোটরসাইকেল চালককে আটক করে। আটককৃত মোটরসাইকেল চালক পরিচয় দিতে গিয়ে বলেছেন, তার নাম জাহাঙ্গীল হোসেন। তিনি ভালাইপুর মোড়ে বিসমিল্লাহ হোটেলের সত্বাধিকারী বাবর আলীর ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, জাহাঙ্গীর হোসেন ভালাইপুর মোড় থেকে বেপরোয়া গতীতে বাড়াদী যাওয়ার পথে গোকুলখালী বাজার পার হয়ে রঙ সাইডে গিয়ে রাস্তার পাশে দাড়িয়ে থাকা শিশু হুসাইনকে সজোরে ধাক্কা দিলে গুরত্বর আহত হয় সে। স্থানীয় লোকজন হুসাইনকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। শিশুর মাথায় গুরত্বর আঘাত হওয়াই কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তৎক্ষাণিক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। খবর পেয়ে গোকুলখালী পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে চালক জাহাঙ্গীর হোসেন ও মোটরসাইকেলটি পুলিশ হেফাজতে নিয়ে ক্যাম্পে নিয়ে যান।

এ ঘটনার পর একাধীক প্রতক্ষ্যদর্শী অভিযোগ করে বলেন, চালক জাহাঙ্গীর হোসেন ভালাইপুর মোড়ের দিক থেকে এক হাত দিয়ে দ্রুত গতিতে গাড়ি চালিয়ে আসার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রঙ সাইডে গিয়ে শিশু হুসাইনকে সজোরে ধাক্কা দেয়। আরও অভিযোগ করে বলেন যে গোকুলখালী বাজারে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, একটি কলেজ ও মাদরাসা থাকা সত্বেও কোনো র্স্প্রিড ব্রেকার নেই। সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে র্স্প্রীড ব্রেকার তৈরির দাবি জানায়।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *