আমি হিন্দু না মুসলিম শিরোনামে ঝিনাইদহের সেই সরস্বতী ওরফে সুফিয়া পেলো স্থায়ী ঠিকানা

 

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহে ১৯৭১ সালে কুড়িয়ে পাওয়া সরস্বতী ওরফে সুফিয়ার দায়িত্ব নিলো একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি। গতকাল রোববার সকাল ১১টায় ঝিনাইদহ কালীগঞ্জের বারবাজার ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে সুফিয়ার একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদকের নিকটে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল, যশোর জেলা একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি ও দৈনিক সত্যপাঠের সম্পাদক হারুন অর রশিদ। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় পলিট বুরো সদস্য কম. ইকবাল কবির জাহিদ, রবিউল মাস্টার, সৈয়দ আজমল, ওয়াজেদ খান ডাবলু, স্বপ্না সুলতানাসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

উল্লেখ্য, গত ১৪ এপ্রিল বিভিন্ন পত্র পত্রিকা, অনলাইন নিউজ পোর্টালসহ ফেসবুকে সরস্বতী ওরফে সুফিয়ার জীবন কাহিনি নিয়ে ‘৭১ সালের কুড়িয়ে পাওয়া মেয়েটি হিন্দু না মুসলিম’ শিরোনামে একটি সচিত্র প্রতিবেদনসহ সংবাদ প্রকাশিত হয়। এ প্রতিবেদনটি একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবিরের দৃষ্টি গোচর হলে সরস্বতী ওরফে সুফিয়ার পুনর্বাসনের দায়িত্ব নেন। এই দায়িত্ব নেয়ার মধ্যেদিয়ে সরস্বতী ওরফে সুফিয়ার জীবনের একটু স্বস্তি ফিরে এলো।

খুশিতে আত্মহারা সুফিয়া গ্রামবাসীকে জানান, আমি চলে যাচ্ছি তোমাদের মাঝে মাঝে মোবাইল করে সকলের খোঁজ খবর নেবো। খুশির খবরে সকাল ১০টায় নতুন কাপড় পরে বার বাজার ইউনিয়ন পরিষদে এসে একটি চেয়ারে বসে ছিলেন তিনি। চোখে মুখে ছিলো তৃপ্তির হাসি। সকলের ডেকে ডেকে বলছে সাহেবরা আমার নিয়ে যাচ্ছে আমি আর আসবো না সেখানে থাকবো।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *