আইনস্টাইন-হকিংকে ছাড়িয়ে গেলো শিশুটি

আইনস্টাইনহকিংকে ছাড়িয়ে গেলো শিশুটি

মাথাভাঙ্গা মনিটর: তার বয়স মাত্র ১১ বছর। অথচ এই বয়সেই আলবার্ট আইনস্টাইন ও স্টিফেন হকিংয়ের মতো বিখ্যাত বিজ্ঞানীর চেয়েও বুদ্ধিমান সে। নাম তার অর্ণব শর্মা। সম্প্রতি বুদ্ধিমত্তার পরীক্ষায় আইনস্টাইন ও হকিংয়ের চেয়ে দুই নম্বর বেশি পেয়েছে সে। বুদ্ধিমত্তা মাপার পরীক্ষাগুলোর মধ্যে মেনসা টেস্ট অন্যতম। খুব কঠিন পরীক্ষা বলে এর ‘কুখ্যাতি’ আছে। আর সেই পরীক্ষাতে কোনো পূর্বপ্রস্তুতি ছাড়াই অংশ নিয়েছিলো অর্ণব। যুক্তরাজ্যের দক্ষিণাঞ্চলের রিডিং শহরে মা-বাবার সাথে থাকে সে। মেনসা টেস্টে ১৬২ নম্বর পেয়েছে অর্ণব। অথচ পরীক্ষায় বসার আগে এর প্রশ্ন সম্পর্কে কোনো ধারণাই ছিলো না তার। স্রেফ মনের জোরেই কয়েক সপ্তাহ আগে পরীক্ষায় বসে সে। আর তার পরই ইতিহাস। মেনসার পক্ষ থেকে একজন মুখপাত্র বলেছেন, অর্ণব যে নম্বর পেয়েছে, তা খুব কম মানুষই অর্জন করতে পেরেছে।

বুকে বই রেখে গুলি : ইউটিউব খ্যাতির বদলে মৃত্যু

মাথাভাঙ্গা মনিটর: যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটার যুগল পেদ্রো রুইজ আর মোনালিসা পেরেজ। উনিশ বছরের ঝলমলে ছেলেমেয়ে দুটোর মাথায় একটাই নেশা, কী করে চটজলদি ইউটিউব তারকা হওয়া যায়। আর সেজন্য অতিমানবীয় ও ভয়ঙ্কর উপায় বেছে নিচ্ছিলেন তারা। জানা গেছে, পেদ্রো রুইজ ক্যামেরার সামনে হঠাত তার বান্ধবী মোনালিসা পেরেজকে জানায় যে, বুকের ওপরে একটা মোটা বিশ্বকোষ নিয়ে সে দাঁড়াবে। মেয়েটি গুলি চালাবে। বইয়ে আটকে যাবে গুলি। কিন্তু সবই হলো। শুধু গুলিটা বইয়ে আটকে না গিয়ে ফুঁড়ে দিল ছেলেটার বুক। তিন বছরের একটি বাচ্চাও রয়েছে ওদের। অল্পবয়সী বাবা-মা হিসেবে নিজেদের জীবনকে সবার সামনে তুলে ধরলেই বিখ্যাত হয়ে ওঠা যাবে, এমনই ভেবেছিলো ওরা। দু একটা ভিডিও ব্লগ আপলোডও করেছিলো। ওরা ভেবেছিলো গুলি আটকানো বই এর খেলাটা তুমুল হিট হবে। মেয়েটি প্রথমে রাজি হচ্ছিলো না। পেদ্রোই জেদ ধরেছিলো বলে জানা গেছে। তবে এই কাণ্ডের আগে মোনালিসা টুইটে লিখেছিলো, ‘আমি আর পেদ্রো বোধহয় সবচেয়ে বিপজ্জনক ভিডিও শ্যুট করতে চলেছি। ভাবনাটা পেদ্রোরই, আমার না।’ কিন্তু বন্দুকটা তো এক ফুট দূর থেকে মোনালিসাই চালিয়েছিলো। অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা তার বিরুদ্ধেই দায়ের করেছে পুলিশ।

ফ্রান্সের নারী অধিকারের অগ্রদূত সিমন ভেইল আর নেই

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ফ্রান্সের গর্ভনিরোধ ও গর্ভপাত বৈধ করার ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দানকারী সিমন ভেইল মারা গেছেন।  তার বয়স হয়েছিলো ৮৯ বছর। ভেইলের ছেলে জ্যঁ ভেইল বলেন, ফরাসি রাজনীতির পুরোধা এবং ইউরোপীয় সংসদের প্রথম প্রেসিডেন্ট ভেইল তার নিজ বাড়িতে মারা গেছেন।

ট্রাম্পের মুসলিম নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হচ্ছে

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ছয়টি মুসলিম প্রধান দেশের নাগরিকসহ শরণার্থীদের বিরুদ্ধে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিতর্কিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হচ্ছে। আর এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রে ঘনিষ্ঠ আত্মীয়-স্বজন না থাকলে এমনকি কোনো ধরণের ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড ছাড়া এই দেশগুলোর কোনো ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশাধিকারের ক্ষেত্রে বাধার সম্মুখীন হবেন। এছাড়া তাদের ভিসাও বাতিল করা হতে পারে। গত জানুয়ারিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়েই ইরান, ইয়েমেন, সিরিয়া, লিবিয়া, সোমালিয়া ও সুদানের নাগরিকদের ওপর যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার নির্বাহী আদেশ জারি করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু তারপর থেকে দেশটির অনেক রাজ্যের আদালতে তা খারিজ হয়ে গেলেও, গত সপ্তাহে তা আংশিক বহালের পক্ষে রায় দেয় সুপ্রিম কোর্ট। এর পর থেকেই নড়েচড়ে বসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন।

সমকামী বিয়ের বৈধতা দিলো জার্মানি

মাথাভাঙ্গা মনিটর: জার্মানিতে স্ন্যাপ ভোটের মাধ্যমে সমকামী বিয়ের বৈধতা দিলো এমপিরা। দেশটির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল সোমবার বিরোধীদের এ বিষয়ে ভোটাভুটির প্রস্তাব করলে, শুক্রবার দেশটির পার্লামেন্টে অনুষ্ঠিত ভোটে ব্যাপক ব্যবধানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে প্রস্তাবটি। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা- জানা গেছে, এর আগে সমকামী বিয়ের বিরোধিতা করে আসছিলেন চ্যান্সেলর। তবে নতুন এই আইন পাস হওয়ায় এখন থেকে সমকামীরা (গে ও লেসবিয়ান) বিয়ের পূর্ণ অধিকার পেলেন। একই সাথে তারা সন্তান দত্তকও নিতে পারবেন। জানা গেছে, মার্কেল এ প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিলেও তার রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীরা প্রস্তাবটির পক্ষে অবস্থান নিয়েছিলেন। তবে ইউরোপীয় দেশের মধ্যে নরওয়ে, সুইডেন, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, আইসল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, স্পেন, পর্তুগাল, লুক্সেমবার্গ, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ড আগেই সমকামী বিয়েকে বৈধতা প্রদান করে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *