অপচিকিৎসায় ঝিনাইদহে দুজনের মৃত্যুর অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: স্বাস্থ্য বিভাগের উদাসীনতার কারণে ঝিনাইদহের মধুহাটি ইউনিয়নের হাট-বাজারগুলোতে অবৈধ ওষুধ ফার্মেসি গড়ে উঠেছে। গ্রামের অল্প শিক্ষিত উঠতি বয়সী বেকার যুবক কোনো রকম প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেদের নামের আগে নানা ধরনের পদবী জুড়ে দিয়ে রোগীদের চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছে। অপচিকিৎসায় ইউনিয়নের পৃথক দুটি গ্রামে দুজনের অপমৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। গত বুধবার সন্ধ্যায় মহামায়া গ্রামের ছাব্দার আলী গাজী (৪৭) এবং গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাজার গোপালপুরে আরজিনা বেগম (৪২) নামে দুজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। তাদের মৃত্যুর পর এলাকায় বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
জানা গেছে, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ২নং মধুহাটি ইউনিয়নের মহামায়া গ্রামের মৃত ইজাহার আলী গাজীর ছেলে ছাব্দার আলী গাজী বেশ কয়েকদিন ধরে জ্বর জ্বর বোধ করছিলেন। একই সাথে মাঝে মধ্যে রক্তচাপ বেড়ে যাচ্ছিলো। গত বুধবার বিকেলে চান্দুয়ালী বাজারের কথিত পল্লি চিকিৎসককে ডেকে আনেন। তিনি তার শরীরের ইনজেকশন দেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই তার অসুস্থতা বেড়ে যায়। পরিবারের লোকজন দ্রুত ঝিনাইদহ শহরের হাসান ক্লিনিকে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
অপরদিকে ইউনিয়নের বাজার গোপালপুর গ্রামের মৃত আবুল খায়েরের মেয়ে আরজিনা বেগমের মাঝেমধ্যেই মানষিক সমস্যা দেখা দেয়। বেশ কয়েকদিন ধরে তার এ সমস্যা চলছিলো। যে কারণে খাবার খাচ্ছিলো না, একইসাথে রাত-দিন কোন সময়েই সে ঘুমাতে পারছিলো না। গত সোমবার সন্ধ্যায় গ্রামের বাজারের পল্লি চিকিৎসকের নিকট থেকে ঘুমের ওষুধ নিয়ে যায়। ওষুধ খাওয়ানোর পর সে ঘুমিয়ে পড়ে। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে পরিবারের লোকজন মঙ্গলবার বিকেলে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে এ মৃত্যু নিয়ে দু পরিবারের লোকজন কেউই কোনো মন্তব্য করেননি। এ বিষয়ে ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন ডা. আব্দুস সালাম বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ-খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *