মেহেরপুরে সেনাবাহিনী-পুলিশের তৎপরতায় বদলে যাচ্ছে চিত্র

মাজেদুল হক মানিক : মেহেরপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে সেনাবাহিনী ও পুলিশ সদস্যদের ব্যাপক তৎপরতা শুরু হয়েছে। এতে ফাঁকা হতে শুরু করেছে মেহেরপুর জেলাশহরসহ জেলার সড়ক ও বাজারগুলো। আইন শৃংখলারক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের জেরা থেকে রক্ষা পেতে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন ঘর থেকে বের হওয়া মানুষেরা।

জানা গেছে, বেলা সাড়ে এগারটার দিকে মেহেরপুর শহরে সেনাবাহিনী ও পুলিশের গাড়ি বহর সাইরেন বাজিয়ে শহরের প্রধান সড়কে নামে। বড় বাজার, হোটেল বাজার ও বাস স্ট্যান্ড এলাকায় খোলা থাকা দোকানের অনেকেই এসময় পালিয়ে যান। এ বহরে রয়েছেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুল আলম।

এ প্রসঙ্গে মাসুদুল আলম বলেন, জরুরী পরিসেবা ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ছাড়া কোন কিছুই খোলা থাকবে না। এমন কোন দোকান ও প্রতিষ্ঠান খোলা থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দণ্ড দেয়া হবে। অপরদিকে বিনা প্রয়োজনে যদি কাউকে বাড়ির বাইরে পাওয়া যায় তাকেও এ দণ্ডের আততায় আনা হবে।

এদিকে একই সময়ে গাংনী উপজেলা শহরে গাংনী থানা পুলিশের কয়েকটি গাড়িতে পুলিশ সদস্যরা মহড়া দেন।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন বলেন, অন্যদিন পুলিশ বাজারে এসে মানুষকে অনুরোধ করেছেন। আজ পুলিশ সদস্যদের চেহারা ছিল ভিন্ন। তাদের অগ্নিমূর্তি অবস্থা দেখে বাজারে যারা অবস্থান করছিলেন তারা সটকে পড়েছে।

গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান বলেন, মানুষকে অনুরোধ করে সরানো যাচ্ছে না। চায়ের দোকানসহ অপ্রয়োজনীয় অনেক দোকান খুলে আড্ডা জমাচ্ছে। এজন্য কঠোরতা ছাড়া আমাদের হাতে কোন উপায় নেই। গাংনী বাজারসহ এ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পুলিশের মহড়া চলছে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের অনুরোধ উপেক্ষা করে গেল তিন দিন মানুষ অনেকটাই স্বাভাবিক চলাফেরা শুরু করেছিলেন। হাট বাজার ও আর শহরের অলিগলিতে শুরু হয়েছিল আড্ডা। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টি যেন ভুলতে বসেছিলেন তারা।

#ফাইজার(০৩-০৪-২০)

Leave a comment

Your email address will not be published.