ঢাকায় বিএনপির সমাবেশের অনুমতি মেলেনি

চুয়াডাঙ্গা জীবননগর ও ঝিনাইদহসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ১৯ দলের বিক্ষোভ সমাবেশ

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: রাজধানী ঢাকায় শেষ পর্যন্ত সমাবেশের অনুমতি পায়নি বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৯ দলীয় জোট। দু দফা তারিখ পেছানোর পরও অনুমতি না পেয়ে আজ সোমবার রাজধানীর থানায় থানায় বিক্ষোভ সমাবেশ করবে জোট। গত দু দিনে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের প্রস্তুতি নিলেও পুলিশের অনুমতি না পেয়ে দু দফায় পেছানো হয় এ কর্মসূচি।

৫ জানুয়ারির একতরফা নির্বাচন বাতিল ও ২৯ জানুয়ারির কালো পতাকা মিছিলে বাধা দেয়ার প্রতিবাদে এ কর্মসূচির ঘোষণা দেয় ১৯ দলীয় জোট। গত দু দফার মতো আজ সোমবারের সমাবেশের জন্যও পুলিশ অনুমতি দেয়নি। ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার মাসুদুর রহমান রোববার বলেছেন, বইমেলার নিরাপত্তার কারণে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। বিএনপির সহদফতর সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম রাতে বলেন, পুলিশ সমাবেশের অনুমতি না দেয়ায় রাজধানীর থানায় থানায় সমাবেশের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১৯ দলীয় জোট।

এদিকে, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার-গুম-হত্যা, কালো পতাকা মিছিল ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনে বাধা, অবৈধ সংসদ বাতিল, আলোচনার মাধ্যমে নতুন তফশিল ঘোষণা এবং নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে চুয়াডাঙ্গা, জীবননগর ও ঝিনাইদহে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার গুম, হত্যা, কালো পতাকা মিছিল ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনের বাধা দান, অবৈধ সংসদ বাতিল, আলোচনার মাধ্যমে নতুন তফশিল ঘোষণা এবং নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবদল বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদসভা করে। গতকাল রোববার বিকেল সাড়ে ৪টায় জেলা বিএনপি কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে এসে প্রতিবাদসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন জেলা যুবদলের আহ্বায়ক অ্যাড. ওয়াহেদুজ্জামান বুলা। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির সহসভাপতি এম জেনারেল ইসলাম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- জেলা যুবদলের যুগ্মআহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম রতন, মোকাররম হোসেন, যুবদলের কেন্দ্রীয় সদস্য এমদাদুল হক ডাবু, জেলা যুবদল নেতা আশরাফ বিশ্বাস মিল্টু, দামুড়হুদা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম তনু, দর্শনা পৌর যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাহারুল ইসলাম, জেলা যুবদল নেতা শফিকুল ইসলাম পিটু, ফারুক, মল্লিক, তোফিকুজ্জামান, রবিউল ইসলাম লিটন, মামুন রেজা সবু, গোলাম কিবরিয়া তিস্তা, ডিল্টন হোসেন, আরিফুজ্জামান পিন্টু, আক্তারুজ্জামান আক্তার, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক এমএ তালহা, যুগ্মআহ্বায়ক রাজীব খান, সুজন মালিক, মহিদুল ইসলাম, নিশান, একরামুল, টোটন খান, আলমডাঙ্গা যুবদল নেতা মিল্টন মল্লিক, মাগরিবুর রহমান, অহিদুল ইসলাম, ডালিম মিয়া, আশরাফুর ইসলাম, নাসির উদ্দিন, চিনির উদ্দিন, জরডেন, রাসেল, আলাল, খাজা প্রমুখ।

প্রতিবাদসভায় বক্তারা বলেন, গণতান্ত্রিক আন্দোলন চলাকালে যুবদলের নেতাকর্মীকে গ্রেফতার ও গুম করা হচ্ছে। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে দমনের নামে হত্যা করা হচ্ছে। এই সরকার অবৈধ সরকার। গণআন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারের পতন ঘটাতে হবে। বক্তারা আরও বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশে আগামীতে সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যুবদল একাত্মতা প্রকাশ করছে।

প্রহসনের নির্বাচন বাতিল, সারাদেশে বিরোধী জোটের নেতাকর্মীদের খুন-গুম, হত্যা ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা পুনর্বহালের দাবিতে চুয়াডাঙ্গায় বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ করেছে জেলা যুবদল। গতকাল রোববার বেলা ১২টায় শহরের কোর্টমোড় এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিটি বের হয়। মিছিলটি নেতৃত্ব দেন জেলা যুবদলের আহ্বায়ক খালিদ মাহমুদ মিল্টন ও সদস্য সচিব সাইফুর রশিদ ঝন্টু। মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির সহসভাপতি এ্যাড. শাহাজান মুকুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল হক পল্টু, সাংগাঠনিক সম্পাদক রউফুন নাহার রিনা, দফতর সম্পাদক আবু আলা সামসুজ্জামান, চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবদলের আহ্বায়ক খালিদ মাহমুদ মিল্টন, সদস্য সচিব সাইফুর রশিদ ঝন্টু ও জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক শাহাজান খাঁন, সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক মহাবুল হক, পৌর যুবদলের আহ্বায়ক হাজী রবিউল হক, দামুড়হুদা উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাহবুবুর রহমান বাচ্চু, জীবননগর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক আবুল হোসেন তোয়া, দর্শনা পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক সোহেল তরফদার, আসাদ, সদর উপজেলা যুবদলের যুগ্মআহ্বায়ক সাইদুর, মানিক, মিলন, জয়নাল, পিন্টু, রফিকুল ও লাল।

বক্তারা বলেন, সরকার গায়ের জোরে দেশকে একদলীয় শাসনের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। এর ফল শুভ হবে না। তারা আরো বলেন, অবিলম্বে প্রহসনের নির্বাচন বাতিল করে সবদলের অংশগ্রহণে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা পুনর্বহাল করে নির্বাচন দিন।

জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, গুম ও হত্যার প্রতিবাদে গতকাল রোববার জীবননগরে যুবদলের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়। উপজেলা যুবদল আহ্বায়ক আবুল হোসেন তোয়ার নেতৃত্বে বিকেলে শহরে এ বিক্ষোভ মিছিল করা হয়। বিক্ষোভ মিছিল শেষে প্রতিবাদসভা অনুষ্ঠিত হয়। যুবদল সভাপতি আবুল হেসেন তোয়ার সভাপতিত্বে সমাবেশে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন- পৌর যুবদল আহ্বায়ক আবুল হোসেন শিকদার, হযরত আলী, আনিছুর রহমান শিপলু, আলমগীর হোসেন, শান্ত, বাবুল, বাহার, রকিবুল, সামাউল, শাহাজাদা, হারুন, ছাত্রদল নেতা রয়েল, হাসান, শরিফুল, ইয়াদুল, আনার, বিল্লাল প্রমুখ।

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ঝিনাইদহে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জাতীয়তাবাদী যুবদল। দেশব্যাপি বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের অপহরণ, বিচার বহির্ভূত হত্যা, গুম ও হামলা-মামলার প্রতিবাদে জেলা যুবদল এ কর্মসূচির আয়োজন করে।

গতাকল রোববার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বর থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলে যুবদলের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করে। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। জেলা যুবদলের যুগ্মআহ্বায়ক আহসান হাবিব রনকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন- বিএনপি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মসিউর রহমান। বক্তব্য রাখেন- বিএনপি নেতা আব্দুল মালেক, জাহিদুজ্জামান মনা, যুবনেতা মিজানুর রহমান সুজন, মীর ফজলে এলাহী শিমুল, লোকমান হোসেন, রোকনুজ্জামান, আশরাফ হোসেন প্রমুখ।

Leave a comment

Your email address will not be published.