চুয়াডাঙ্গায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ নির্বাচন বাতিল না করলে রক্ত দিয়ে তা প্রতিহত করা হবে

স্টাফ রিপোর্টার: সবদলের অংশগ্রহনে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখা। গতকাল শুক্রবার বাদ জুম্মা শহরের শহীদ হাসান চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করার সময় সংগঠনটির চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ এ আহ্বান জানান। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে ইসলামী আন্দোলনের নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রাকিব উদ্দীন আহমদের কঠোর সমালোচনা করেন। বক্তারা বলেন, আগামী ৫ জানুয়ারি বাংলাদেশে যে নির্বাচন হতে যাচ্ছে তা প্রহসনের নির্বাচন। বিশ্বের কোথাও এমন নির্বাচনের নজির নেই। মানববন্ধনে ইসলামী আন্দোলনের চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি মুফতি আবুল হাসনাত তার বক্তব্যে বলেন, দুই দলের ক্ষমতার লড়াইয়ে বাংলাদেশের মানুষ চরম অসহায় হয়ে পড়েছে। তারা মুখে জনগণের কল্যাণে রাজনীতির কথা বললেও বাস্তবে অগণতান্ত্রিক আচরণ করছে। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক ডা. জিনারুল ইসলাম বলেন, এখনো সময় আছে সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন দিন। নয়তো ইসলামী আন্দোলনের নেতাকর্মীরা বুকের তাজা রক্ত দিয়ে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রতিহত করবে। বক্তব্য রাখেন, সহসভাপতি রুহুল আমিন সোহেল, কোষাধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম, দামুড়হুদা উপজেলা সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান ও ইসলামী ছাত্র আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক ইমরান সরকার। বক্তারা সহিংস রাজনীতি বন্ধ ও জনগণের শান্তির জন্য আল্লাহর পথে থেকে রাজনীতি করার আহ্বান জানান।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল বাতিলের দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে মেহেরপুরে ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের মানববন্ধন পুলিশি বাধার মুখে পণ্ড হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি হিসেবে পৌর ভূমি অফিসের সামনের সড়কে ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের জেলা সভাপতি মুফতী আবুল কালাম কাছেমীর নেতৃত্বে নেতা-কর্মীরা মানববন্ধন করতে চাইলে পুলিশি বাধার মুখে তা পণ্ড হয়। এ সময় নেত-কর্মীরা স্থান ত্যাগ করে চলে যায় বলে জানান জেলা সভাপতি মুফতী আবুল কালাম কাছেমী। তিনি আরো বলেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচি বিধায় পুলিশের কাছে অনুমতি চাইলেও পুলিশ অনুমতি দেয়নি। তার পরও শতাধিক লোক নিয়ে মানববন্ধন করার চেষ্টাকালে মেহেরপুর সদর থানা পুলিশের এসআই আকবর তাতে বাধা দেন।

মেহেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিয়াজুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের নেতা-কর্মীরা মানবন্ধনে দাঁড়ানোর চেষ্টা করলে পুলিশি তৎপরতায় তারা মাঠে দাঁড়াতেই পারেনি।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *