আলমডাঙ্গার প্রাগপুর গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ : দফায় দফায় সংঘর্ষে আহত ৫

আলমডাঙ্গা ব্যরো: আলমডাঙ্গার প্রাগপুর গ্রামে আবারও জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ৫ জন গুরুতরভাবে রক্তাক্ত জখম হয়। তাদেরকে হারদী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রাগপুর ক্যাম্প পুলিশ ব্যর্থ হলে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

জানা গেছে, আলমডাঙ্গার প্রাগপুর গ্রামে লালু মালিথা গ্রুপের সাথে একই পাড়ার জামান গাইনের জমিজমা সংক্রান্ত জের ধরে বেশ কিছুদিন ধরে প্রকাশ্য মহড়া চলে আসছিলো। কয়েকদিন আগে দু গ্রুপের মধ্যে মারামারিতে লালু মালিথা গ্রুপের ৩ জন গুরুতর আহত হয়। এবিষয়ে ৮ জনকে আসামি করে একটি মামলাও দায়ের করা হয়। হঠাৎ করে গতকাল সকালে লালু গ্রুপের আনিসের ছেলে শাহীনকে জামান গ্রুপের লোকজন জোরপূর্বক ধরে নিয়ে বেদম প্রহার করে বেঁধে রাখে। সুলতানের ছেলে মেরে রাস্তল হায়দারের ছেলে ফরিদের মাথা ফাটিয়ে দেয়। এ সময় লালু গ্রুপের লোকজন জামান গ্রুপের আ. রাজ্জাকের ছেলে সুন্নতকে বেঁধে রেখে মারধর করে। শুরু হয় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ। রামদা, লাঠিফালা, ঢালফালা, সড়কি নিয়ে এক গ্রুপ অন্য গ্রুপের ওপর চড়াও হয়। প্রায় ৩ ঘণ্টা ধরে উভয় পক্ষের মধ্যে চলতে থাকে সংঘর্ষ। ওসমানপুর ক্যাম্প পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়। পরে সংবাদ পেয়ে আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যান। বেশ কয়েক ঘণ্টা চেষ্টার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। স্থানীয় লোকজন জানিয়েছে ওই ঘটনায় আরও বেশকিছু লোক আহত হয়। সামাদ মেম্বার ও সুন্নত মেম্বার দু গ্রুপের লোকজনকে শান্ত করার চেষ্টা চালায়। যে কারণে অনেকে প্রাণে বেঁচে গেছে। বর্তমানে উভয় পক্ষের মধ্যে চলছে টানটান উত্তেজনা। যে কোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের সংঘর্ষ।

Leave a comment

Your email address will not be published.