মরুভূমিতে শাহরুখের সাথে যা হলো…

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সম্প্রতি একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানে অংশ নিতে আবুধাবি গিয়েছিলেন শাহরুখ খান। শুটিং শেষে ফটোশুটের জন্য অনুষ্ঠানের টিমের সাথে মরুভূমির উদ্দেশে রওনা দেন তিনি। সেখান থেকে হোটেলে ফেরার কথা ছিলো তার। কিন্তু হোটেলে কীভাবে যাবেন? তার আগেই তো গাড়ি আটকে যায় মরুভূমির চোরাবালিতে। সে এক ভয়ংকর পরিস্থিতি। ধীরে ধীরে গাড়ি চোরাবালির ভেতর তলিয়ে যেতে থাকে। সাথে থাকা উপস্থাপিকা নিশান ভয়ে চিৎকার করতে থাকেন। শাহরুখ নিজেও খুব ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন, কিন্তু চেষ্টা করছিলেন যথাসম্ভব শান্ত থাকার। এরপর মূল ঘটনা ঘটে শাহরুখ খান ও সেই উপস্থাপিকা চোরাবালিতে পড়ে যাওয়ার পর।

চোরাবালিতে যখন শাহরুখের বুক পর্যন্ত ডুবে গেছে, তখন সেখানে বিশাল আকৃতির এক কোমোডো ড্রাগন হাজির হয়। ভয়ংকর দেখতে সেই বন্য সরীসৃপ আস্তে আস্তে শাহরুখদের দিকেই এগিয়ে আসতে থাকে। উপস্থাপিকা এ সময় ভয়ে কান্নাকাটি শুরু করেন। আর শাহরুখ তাকে অভয় দিতে গিয়েও খেতে থাকেন হিমশিম। বালু ছিটিয়ে সেই অদ্ভুত প্রাণীকে তাড়ানোর চেষ্টা করেন এই নায়ক। কিন্তু প্রাণীটি ক্রমেই সামনে এগিয়ে আসতে থাকে। কিছুক্ষণ এমন শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি চলার পর কোমোডো ড্রাগনের খোলস থেকে মাথা বের করেন মিসরীয় কমেডিয়ান ও একটি প্র্যাংক শো উপস্থাপক রমিজ গালাল। ‘রমিজ আন্ডারগ্রাউন্ড’ নামের একটি অনুষ্ঠান, সেখানে মূলত তারকাদের বোকা বানানো হয়, তার জন্যই এমন ভয়ংকর পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছিলো। বলাই বাহুল্য, এই মজাটি ‘কিং খান’ ভালোভাবে নিতে পারেননি। নকল চোরাবালি থেকে তাঁকে উঠিয়ে আনার পর তিনি রমিজকে কয়েকবার মারতে উদ্যত হন।

রমিজ গালাল শাহরুখের হাতে-পায়ে ধরে ক্ষমা চাইতে থাকলেও মন গলেনি এই বলিউড অভিনেতার। শুধু রমিজ যখন শাহরুখের ‘বিল্লু বারবার’ ছবির একটি হিন্দি গান গাইতে আরম্ভ করেন, তখন এই তারকাকে একটু হাসতে দেখা যায়। মিসরীয় কমেডিয়ান যে শাহরুখের পাগল ভক্ত, সেটা তার আচরণেই বোঝা যায়। কিন্তু কোনো ভক্তের কাছ থেকে এ ধরনের বাজে অভিজ্ঞতা শাহরুখের এটাই প্রথম। প্রচণ্ড খেপে শাহরুখ এ অনুষ্ঠানের প্রযোজককে তার সাথে দেখা করতে বলেন। পরে নিজের গাড়িতে চড়ে সেখান থেকে চলে যান তিনি। এরপর রমিজ গালালের টুইটার অ্যাকাউন্টে শাহরুখের সাথে একটি সেলফি প্রকাশ করা হয়। তবে এই ছবিটি অনুষ্ঠানের শুটিংয়ের আগে না পরে, সেটা জানা যায়নি। এর আগেও প্যারিস হিলটন, আন্তোনিও ব্র্যান্ডেরসের মতো তারকাদের বোকা বানিয়ে তোপের মুখে পড়েছিলেন রমিজ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *