ভাষার বিকৃতি না করার আহ্বানসহ একুশের চেতনায় দেশ এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয়

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় ভাষা শহীদদের স্মরণ, সর্বত্র বাংলা ভাষার প্রচলন, ইতিহাস ও ভাষার বিকৃতি বন্ধ এবং মহান স্বাধীনতা ও একুশের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয়ের মধ্যদিয়ে জাতি গতকাল রোববার পালন করলো আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস অমর একুশে ফেব্রুয়ারি। চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে দেশের অন্যান্য স্থানের মতো ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। পালন করা হয়েছে নানা কর্মসূচি।
মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে লাখো মানুষের ঢল নামে। সবার হাতে ফাগুনে ফোটা রঙিন ফুলের স্তবক, পোশাকে শোকের কালো চিহ্ন, শ্রদ্ধায় নাঙা পায়ে প্রতিটি পদক্ষেপে ভাষার অহঙ্কার, আর কণ্ঠে একুশের অমর সেই বিষাদমাখা চিরচেনা গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি/আমি কি ভুলিতে পারি…।’ সালাম, বরকত, রফিক, জব্বারের স্মরণে নতুন শপথের গান শোনা গেছে এবার। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারসহ সারাদেশের প্রতিটি শহীদ মিনারে কালো ব্যাজ ধারণ করে শ্রদ্ধা জানাতে আসা মানুষের কণ্ঠে ছিলো দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র রুখে দেয়ার শপথ।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাষার বিকৃতি রোধে সকলকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটকে বিশ্বমানের করে গড়ে তোলা হবে। এ প্রতিষ্ঠানটি হবে সারাবিশ্বের মাতৃভাষা চর্চা ও মাতৃভাষা গবেষণা করার পাদপীঠ। বিকৃত উচ্চারণে বাংলা শব্দ উচ্চারণের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকাল একটা সংস্কৃতি দেখা যাচ্ছে। বাংলা ভাষা ভুলে যাওয়াটাই যেন একটা বিরাট কাজ। বাংলাকে বিকৃত করে ইংরেজী অ্যাকসেন্টে বাংলা বলাটাকেই কেউ কেউ গৌরবের মনে করেন। ভাষার বিকৃতি করা যাবে না। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে গতকাল রোববার বিকেলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট যেন কেউ বন্ধ করতে না পারে সে লক্ষ্যে আইন প্রণয়ন করেছি। এ প্রতিষ্ঠানটি যাতে ভালোভাবে কার্যক্রম চালাতে পারে সে ব্যবস্থাও আমরা করেছি।
চুয়াডাঙ্গায় জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার বিকেল ৪টায় চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাতীয় সংসদের হুইপ চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনের সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার সাবেক মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন, ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক খুস্তার জামিল, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. আব্দুল মালেক, অ্যাড. আলমগীর হোসেন, চুয়াডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জহুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আশাবুল হক লন্টু, শ্রমিক লীগের সভাপতি আফজালুল হক, মহিলা লীগের সভানেত্রী কহিনুর বেগম, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা জামান পলি, যুবলীগের আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু, যুবলীগ নেতা আব্দুল কাদের, নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশিক ইকবাল স্বপন ও সাধারণ সম্পাদক তানিম হাসান তারেক। প্রধান অতিথি বলেন, মাতৃভাষা বাংলা সর্বস্তরে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দেশ থেকে নির্মূল করতে হবে। এরপর দোয়া পরিচালনা করেন বিএডিসি জামে মসজিদের পেশ ইমাম এবাদত হোসেন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক শওকত আলী বিশ্বাস।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে জেলা শিল্পকলা একাডেমির মুক্তমঞ্চে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ হামীম হাসান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. কামরুজ্জামান, চুয়াডাঙ্গা সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নওরোজ মোহাম্মদ সাঈদ ও চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু। আলোচনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আনজুমান আরা। সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুর রাজ্জাক। আলোচনসভা শেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে কেদারগঞ্জ বাজার কার্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে আলোচনাসভা করা হয়। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরীফ হোসেন দুদুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু। বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি অ্যাড. ফিরোজ আহমেদ, সাবেক দফতর সম্পাদক মতি, জেলা যুবলীগের সাবেক সদস্য মিলন, রাজ্জাক, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইমরান আহমেদ, বিপ্লব, ক্রীড়া সম্পাদক ইছানুল, জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ফরিদ আহমেদ, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাঈম পারভেজ সজল, সহসভাপতি হাসান, জাহাঙ্গীর, যুগ্মসম্পাদক মাফি, দফতর সম্পাদক তাপু, সদর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি জুয়েল রানা. সাধারণ সম্পাদক সুমন রেজা, যুগ্মসম্পাদক শঙ্কর, ইমরান, শিক্ষা ও পাঠ্যচক্র সম্পাদক রাকিব, কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জানিফ, প্রচার সম্পাদক জ্যাকি হোসাইন।
উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগ নেতা ডেভিড সজল তাওরাত, মন্টা, শাকিল, মারুফ, প্লাবন, অনিক, আলামিন, পাভেল, শরীফ, ইমরান, মিলন, জনি, শাওন, আরিফুল, কানন, দাউদ, খায়রুল, হাসিবুল, মাসুদ, মিঠু, আকিব, ওয়াসীম, মাসুম, বুলবুল, আছের, ভুলন, রাকিব প্রমুখ। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে ১৯৫২ ভাষা আন্দোলণে শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। ভাষা অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জেলা ছাত্রলীগের কার্যকরী সদস্য হাফিজুর রহমান হাফিজ।

বাংলাদেশ ডিপ্লোমা মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার আহ্বায়ক ডা. নাজমুল হক, সদস্য সচিব ডা. রবিউল ইসলাম, সিনিয়র সদস্য ডা. আশরাফুল হক শিমুল, ডা. আক্তারুজ্জামান জোয়ার্দ্দার, সাংগঠনিক সম্পাদক, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ, সিভিল সার্জন ডা. প্রিতম্ব রায় ও বিএমএর সভাপতি ডা. মার্টিন হীরক চৌধুরী পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
বাংলাদেশ হরিজন মানবাধিকার ফাউন্ডেশন চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি গোগুল সরদার ভূমিমালী, সহসভাপতি শ্রী নিশিকান্ত সরদার ভূমিমালী ও শ্রী লক্ষণ, জেলা হরিজন যুবসংঘের সভাপতি শ্রীদাম রায় ভূমিমালী, ক্রীড়া সম্পাদক সুবল সরদার ভূমিমালী, প্রদীপ, বিপ্লব কুমার, ডোম মহন, জয়নাল, কৃষ্ণ সরদার, মিঠু, রতন, সাগর পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখা সকালে ৱ্যালি শেষে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। আলোচনাসভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি রেজা হোসেন জোয়ার্দ্দার, সহসভাপতি আব্দুর রহমান ও আব্দুর রশীদ, সাধারণ সম্পদক কাজী রফিকুল হক, সৈয়দ শওকত আলী, ইবরুল হাসান জোয়ার্দ্দার ইবু প্রমুখ।
চুয়াডাঙ্গা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের অংশগহণে প্রভাত ফেরি শেষে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ একেএম শামসুদ্দিন।
আলুকদিয়া মুন লাইট প্রি-ক্যাডেটের পরিচালক আল মামুনের নেতৃত্বে ৱ্যালি বের করা হয়। কলাবাড়ি রামনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও উম্বাত বিশ্বাস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নানা কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি পালন করেছে।
নতিপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৱ্যালি শেষে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। কালিয়াবকরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রুদ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চারুলিয়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, জুড়ানপুর নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় দিবসটি পালন করে। সকালে আট শহীদের বেদিতে পুষ্পমাল্য অপর্ণসহ নাটুদা মাধ্যমিক বিদ্যালয় নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে দিবসটি পালন করেছে।
ডিঙ্গেদহ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ডিঙ্গেদহ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে আলোচনাও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান শিক্ষক শরিফ উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন শঙ্করচন্দ্র ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান। এছাড়া সোহরাওয়ার্দ্দী স্মরণী বিদ্যাপীঠ, ডিঙ্গেদহ দাখিল মাদরাসা, মুনিরা কিন্ডার গার্টেন, ডিঙ্গেদহ কিন্ডার গার্টেন, উদীচী ডিঙ্গেদহ শাখার ৱ্যালি অনুষ্ঠিত হয়। গিরীশনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে দোয়া ও আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। প্রধান শিক্ষক নুর মোহাম্মদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হায়দার মল্লিক।
সরোজগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, তেতুল শেখ কলেজে উদ্যোগে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে ৱ্যালি বের করা হয়। ছাদেমান নেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে আলোচনাসভা সাংস্কৃতিক ও ৱ্যালির আয়োজন করা হয়। উপস্থিত ছিলেন সভাপতি আবু তাহের বিশ্বাস, প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল্লাহ শেখ, প্রধান শিক্ষক আবু সালেহ প্রমুখ। যুগিরহুদা আবুল হোসেন দাখিল মাদরাসা, সরোজগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আইডিয়াল কিন্ডার গার্টেন, বেবি নার্সিং হোম ও সরোজগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে।
বদরগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, বদরগঞ্জ আলিয়ারপুর আজিজ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৱ্যালি ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য রাখেন সভাপতি আব্দুল মোতালেব, কুতুবপুর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক আলাউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ। বাকী বিল্লাহ কামিল মাদরাসায় অধ্যক্ষ জলিল হাওয়ালদারের সভাপতিত্বে মাদরাসা কমিটির সভাপতি অ্যাড. আ.ন.ম আনোয়ার উদ্দিন বিশ্বাস বক্তব্য রাখেন। এছাড়া বদরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে দিবসটির কর্মসূচি পালন করা হয়।
বেগমপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, হিজলগাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও হিজলগাড়ি প্রেস ইউনিটের উদ্যোগে ৱ্যালি ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল্লা আল মামুন, প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন স্বপন, প্রেস ইউনিটের সভাপতি আরিফ হাসান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ অপূর্বসহ সকল সদস্য।
আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন, পৌর পরিষদ, আ.লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পৃথক কর্মসূচি পালন করে। সকালে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে আলোচনা, চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমেদ কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিবর রহমান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শফিউর রহমান জোয়ার্দ্দার সুলতান, উপজেলা ভাইস চেয়ায়ম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুন, প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আ.হ.ম শামীমুজ্জান, সমাজসেবা অফিসার আবু তালেব, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হাফিজুর রহমান, মাধ্যমিক একাডেমি সুপারভাইজার ইমরুল হক, এরশাদপুর একাডেমির প্রধান শিক্ষক মতিয়ার রহামন, মুক্তিযোদ্ধা ডেপুটি কমান্ডার ওহিমদ্দিন, অর্থ কমান্ডার মুনছুর আলী, মুক্তিযোদ্ধা আহসান মৃধা, আলমডাঙ্গা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হারেছ উদ্দিন, মোল্লা ফেরদৌস বিজভী প্রমুখ। বকশিপুর ওয়ার্ড যুবলীগ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক সাজ্জাদুল ইসলাম স্বপন। যুবলীগ নেতা ডাবলু, সাঈদ, সাইফুল, হবিবার, খাইরুল, জামির, ফিরোজ, লিয়াকত, মতিয়ার, ছালাম ও ছব্দুল উপস্থিত ছিলেন। আলমডাঙ্গা ডিগ্রি কলেজ, আলমডাঙ্গা মহিলা ডিগ্রি কলেজ, এরশাদপুর একাডেমি, আলমডাঙ্গা পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, আলমডাঙ্গা পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ব্রাইট মডেল স্কুল, এম সবেদ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়, আদর্শ প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসটি পালন করেছে।
মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গার মোমিনপুর, আলমডাঙ্গার জেহালা, বাড়াদী, নাগদাহ ও আইলহাস ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠন দিবসটি পালন করেছে।
এছাড়া মুন্সিগঞ্জ একাডেমী, মুন্সিগঞ্জ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, সৃজনী মডেল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠ, ড্যাফোডিল কিন্ডারগার্টেন, ইউনিক কিন্ডারগার্টেনসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা মুন্সিগঞ্জ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। এ সময় মুন্সিগঞ্জ একাডেমীর প্রধান শিক্ষক আতিয়ার রহমান ও সৃজনী মডেল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক আহাদ আলী মোল্লা উপস্থিত ছিলেন।
হাটবোয়ালিয়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, হাটবোয়ালিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ চত্বরে নবনির্মিত শহীদ মিনারের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। হাটবোয়ালিয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রেনেসাঁ কেজি স্কুল, নতুন কুঁড়ি কেজি স্কুল ৱ্যালি, আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। অতিথি ছিলেন ভাংবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আসাবুল হক ঠান্ডু, জিনারুল ইসলাম বিশ্বাস, নাসির উদ্দীন, অধ্যক্ষ আব্দুস সাত্তার প্রমুখ।
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, ভোরে দর্শনা পৌর আ.লীগের কার্যালয়ে দলীয় নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে জাতীয়, দলীয় ও শোক পতাকা উত্তোলন করা হয়। দর্শনা অনির্বাণ থিয়েটারের আয়োজনে কেরুজ বাজার মাঠ ও কেরুজ ক্লাব মাঠ থেকে প্রভাতফেরি বের করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দর্শনা কলেজ মাঠের শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। দর্শনা পৌর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, দর্শনা পৌর আ.লীগ, দর্শনা পৌর যুবলীগ, ছাত্রলীগ, দর্শনা পৌর বিএনপি, দর্শনা সরকারি কলেজ, গণ উন্নয়ন গ্রন্থাগার, দর্শনা ডিএস ফাজিল মাদরাসা, দর্শনা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, দক্ষিণ চাঁদপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মেমনগর বিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, আলহেরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, অংকুর আদর্শ বিদ্যালয়, লিটিল এনজেলস কিন্ডার গার্টেন, ওয়েভ ফাউন্ডেশন, দর্শনা প্রেসক্লাব, শ্যামপুর, পূর্বরামনগর, পরাণপুর, দক্ষিণচাদপুর, কাস্টমস, জয়নগর, শান্তিনগর, আজমপুর, পশ্চিমরামনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মুক্তি ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, শান্তিপাড়া সজিব সংগঠন, রামাযুস, সাম্প্রতিক সাংস্কৃতিক সংগঠন, প্রডিজি, চটকাতলা যুবসংঘ, ফারিয়া, রেলওয়ে শ্রমিক ইউনিয়ন, আমরা জী সোসাইটি, পুরাতন বাজার দোকান মালিক সমিতি, রেলবাজার দোকান মালিক সমিতি, মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন, নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন। শপথ বাক্য পাঠ করান দর্শনা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ শ্যামল কুমার সাহা, চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের প্রশাসক দামুড়হুদা উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, অবসবরপ্রাপ্ত উপাধ্যক্ষ মোশাররফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, পৌর আ.লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান, আ.লীগ নেতা মুনসুর বাবু, ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা সৈয়দ মজনুর রহমান, ফজলুল হক, আ.লীগ নেতা গোলাম ফারুক আরিফ, বিএনপি নেতা হাবিবুর রহমান বুলেট, ইকবাল হোসেন, মোমিনুল ইসলাম, শফিউল্লাহ, আব্দুল হান্নান প্রমুখ। এছাড়া কেরুজ চিনিকলের পক্ষ থেকে শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবিএম আরশাদ হোসেনসহ কর্মকর্তারা। শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে সভাপতি তৈয়ব আলী, সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান, শ্রমিক নেতা মোস্তাফিজুর রহমান, হাফিজুল ইসলাম, ফিরোজ আহম্মেদ সবুজ, ও মনিরুল ইসলাম প্রিন্সের নেতৃত্বে প্রভাত ফেরিতে অংশ নেন শ্রমিক-কর্মচারীরা।

কার্পাসডাঙ্গা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কার্পাসডাঙ্গায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পৃথকভাবে শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করে। দিনব্যাপি লাইফ কেয়ার মেডিকেল সেন্টারের উদ্যোগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। আন্দুলবাড়িয়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, আন্দুলবাড়িয়া বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় চত্বরে শহীদ মিনারে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পুষ্পমাল্য অর্পণ করে। প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলীম, মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফাতরুজ্জামান, বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাগরিকা বিশ্বাস, বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রমজান আলী ও হারদা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামসুল আলম তক্কেলের নেতৃত্বে বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ প্রভাতফেরিতে অংশ নেন।
কুড়ুলগাছি প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কুড়ুলগাছিতে যথাযথ মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পালন করতে সকাল ৭টার দিকে বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন, ধান্যঘরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সদাবরী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঠাকুরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কুড়ুলগাছি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কুড়ুলগাছি দাখিল মাদরাসার শিক্ষার্থীরা প্রভাত ফেরি বের করে কুড়ুলগাছি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।
জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, সকালে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, স্কুল-কলেজ ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে রাখা হয়। সকাল ৮টায় উপজেলা ক্যাম্পাস থেকে বৃহৎ প্রভাতফেরি বের করা হয়। উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল ও ইউএনও নুরুল হাফিজের নেতৃত্বে প্রভাত ফেরিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এছাড়াও জীবননগর ডিগ্রি কলেজ, আদর্শ মহিলা কলেজ, পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পাইলট বালিকা বিদ্যালয়, উপজেলা আলিম মাদরাসা, শাপলকলি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, দৌলৎগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আকলিমা প্রি-ক্যাডেট স্কুল, প্রাইড একাডেমি স্কুল, ফেমাস স্কুল, পৌর কিন্ডারগার্টেন, আশরাফুল মডেল একাডেমি, রাখি প্রি-ক্যাডেট স্কুল ও প্রভাতী ল্যাবরেটরি স্কুলের শিক্ষার্থীরা প্রভাতফেরি করে। সকাল ৯টায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শিশুদের রচনা ও সুন্দর হাতের লেখা প্রতিযোগিতা, ক্ষুদ্র ও নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর শিশুদের নিচে ছবি আঁকা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। দুপুরে শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করে মসজিদে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠান ও শেষে প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। হাসাদাহ মডেল ফাজিল মাদরাসার উদ্যোগে আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাভায় সভাপতিত্ব করেন মাদরাসার অধ্যক্ষ মাও. মো. আক্তারুজ্জামান। গয়েশপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হারুন-অর-রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রফিকুল ইসলাম পচা।
উথলী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, উথলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, উথলী মহাবিদ্যালয় ও উথলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে দিবসটি পালন করে।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, মেহেরপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মেহেরপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজ, মেহেরপুর জিনিয়াস ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ফ্রেন্ডস ফাউন্ডেশন মডেল একাডেমিসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজ ও মাদরাসার ছাত্র-ছাত্রীরা প্রভাত ফেরি করে শহীদ স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে। মেহেরপুর নতুন দরবেশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে বিদ্যালয়ে আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক খাইরুল নেছা রেখা। বক্তব্য রাখেন মাহাবুব-উল আলম শান্তি, জাহাঙ্গীর আলম, সিসিজি সদস্য আজের আলী প্রমুখ। আশরাফপুর অ্যাম্বিশান প্রি-ক্যাডেট বিদ্যানিকেতনে আলোচনাসভায় পরিচালক রুহুল আমিন শিমুল, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ইমাদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে শিশু একাডেমি প্রাঙ্গণে একুশের কবিতা আবৃতি, গান ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। সন্ধ্যায় মেহেরপুর শহীদ ড. সামসুজ্জোহা নর্গ উদ্যানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) খায়রুল হাসানের সভাপতিত্বে মেহেরপুরের ভাষা সৈনিক নজির হোসেন ও ইসমাইল হোসেনকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল হালিম ও উপদেষ্টা জেলা শিল্পকলা একাডেমির সহসভাপতি নূরুল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান মফিজ প্রমুখ।
অপরদিকে মেহেরপুর জেলা বিএনপি উদ্যোগে সাবেক এমপি মাসুদ অরুনের নেতৃত্বে ৱ্যালি বের করা হয়। ৱ্যালিতে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি ইলিয়াছ হোসেন, সহসভাপতি আব্দুর রহমান, পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, বিজেপি (মঞ্জু) নেতা শেখ সাঈদ আহম্মেদ, বিএনপি তোজাম্মেল হক, মাহবুবুর রহমান, আবু সুফিয়ান হাবু, হাজী ফজলু খান, হাবীব ইকবাল, জাহিদুল হক জাহিদ, মহিলাদলের নেত্রী ও মেহেরপুর সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রোমানা আহম্মেদ রুমা, জেলা মহিলাদল নেত্রী দিলরুবা খাতুন ও পলি খাতুন বেদানা, স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক তোফায়েল আহমেদ, গাজী খায়রুল, মৎস্যজীবী দলের জেলা আহবায়ক শ্রী গুরুদাস হালদার, মৎস্যজীবী নেতা শাহীন আলম, জেলা জাসাস আহবায়ক প্রভাষক মাহফুজুর রহমান অশেষ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের যুগ্ম আহ্বায়ক রায়হানুল কবীর, মাহবুবুর রহমান বাবু প্রমুখ।

ডাকবাংলা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, উত্তর নারায়ণপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সাধুহাটি সাবেক ছাত্রলীগ নেতারা পুষ্পমাল্য অপর্ণ করেন। বিদ্যালয়ে শেখ মোজাম্মল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। সুপার স্টার সামাজিক সংগঠন ৱ্যালি বের করে।
গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, গাংনী উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ৱ্যালি অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে মহান একুশে স্মরণ করে।
সকালে উপজেলা পরিষদ শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেনসহ নেতৃবৃন্দ। মহিলা এমপি সেলিনা আখতার বানুর পক্ষে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। আওয়ামী লীগের পক্ষে নেতৃবৃন্দ সাথে নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহিদুজ্জামান খোকন পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন। বিএনপির পক্ষে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন জেলা বিএনপি সভাপতি ও সাবেক এমপি আমজাদ হোসেন। এছাড়াও গাংনী পৌরসভার পক্ষে মেয়র আশরাফুল ইসলাম পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম ও যুগ্ম সম্পাদক ইমরান হাবিব, ওয়ার্কাস পাটির পক্ষে জেলা সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মাবুদ, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির পক্ষে সভাপতি আবু জাফর ও সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান, বীর মুক্তিযোদ্ধা দোয়াত আলী স্মৃতি ক্লাবের পক্ষে সভাপতি আক্তারুজামান ও সাধারণ সেন্টু পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন। পুষ্পার্ঘ অর্পণের আগে আওয়ামী লীগ, এমপি মকবুল হোসেন ও বিএনপির উদ্যোগে পৃথক ৱ্যালি ও পতাকা উত্তোলন করা হয়।
এছাড়াও গাংনী মহিলা ডিগ্রি কলেজ, গাংনী ডিগ্রী কলেজ, সন্ধানী স্কুল অ্যান্ড কলেজ, গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ, পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ফুলকুড়ি শিশু শিক্ষালয়, পৌর মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন কর্মসুচীর মধ্য দিয়ে পালন করে মহান ভাষা দিবস।
মুজিবনগর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার হেমায়েত উদ্দিনের নেতৃত্বে উপজেলা চত্বর থেকে প্রভাত ফেরী শুরু করে মুজিবনগর স্মৃতিসৌধে ঘুরে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে একই স্থানে শেষ হয়। প্রভাত ফেরী মুজিবনগর থানা ইনচার্জ কাজী কামাল হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জারজিস হোসাইন, শিক্ষা অফিসার গোলাম ফারুক ও আপিল উদ্দীনসহ উপজেলার কর্মকর্তা, কর্মচারী ও স্কুল/কলেজের ছাত্র/ছাত্রীরা অংর্শ গ্রহন করেন। পরে শহীদ মিনার চত্তরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হেমায়েত উদ্দিনের সভাপতিত্বে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।
আমঝুপি প্রতিনিধি জানিয়েছেন, শহীদ মিনারে আমঝুপি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বোরহান উদ্দিন চুন্নু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিয়ার রহামন, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত খোকন। এছাড়া আমঝুপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বালিকা বিদ্যালয়, আমঝুপি সরকারি প্রাথমিক বালক বিদ্যালয়, বালিকা বিদ্যালয়, গন্ধরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আমঝুপি আলিম মাদরাসা রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। আমঝুপি জাগ্রত যুব সমাজের উদ্যোগে স্বেচ্ছায় রক্তদান ও গ্রুপিং কর্মসূচির উদ্বোধন করেন সাংবাদিক কাজী সোহাগ। প্রতিষ্ঠাতা ইমরান খাঁন, কার্যকারী কমিটির সভাপতি রেজানূর জামান তন্ময় এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
বারাদী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, বারাদী কলাইডাঙ্গা এসএস বিদ্যা নিকেতনে আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন সাংবাদিক রফিকুল আলম। প্রধান অতিথি ছিলেন পিরোজপুর ইউপি চেয়ারম্যান সামছুল আলম, বিদ্যালয়ের পরিচালক সেলিম মোল্লা, সাংবাদিক আবু সুফিয়ান, হুমায়ন কবির, সালেকিন উপস্থিত ছিলেন। মোমিনপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পিরোজপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, যাদুখালী স্কুল অ্যান্ড কলেজ দিবসটি পাল করেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.