প্রশ্নের জবাবে বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করে তার জীবন সংগ্রামের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জনগণের ওপর তার আস্থা রয়েছে, জনগণের আস্থাও তার ওপর রয়েছে। তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা আইআরআই’র সাম্প্রতিক জরিপের প্রসঙ্গ টেনে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সফলতার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে জাতীয় পার্টির সাংসদ ফখরুল ইমাম জানতে চান, আপনি এতো সাহস ও শক্তি কোথায় পেয়েছেন? এ নিয়ে অনুভূতি কী?২০১৫ সালের ৩০ অক্টোবর থেকে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত সময়ে চালানো ওই জরিপে অংশ নেওয়া ৭৭ শতাংশ মানুষ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাজে সন্তোষ জানিয়েছেন। ফখরুল ইমামের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করে তার জীবন সংগ্রামের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।
শেখ হাসিনা বলেন, সততাই শক্তি, সততাই সাহস। এই শক্তি-সাহস পেয়েছি বাবার কাজ থেকে। প্রেরণা পেয়েছি মায়ের কাজ থেকে।”
তিনি বলেন, বাবা সারাজীবন মানুষের জন্য সংগ্রাম করে গেছেন। এ জনগণের জন্যই তিনি দুঃখ-কষ্ট করেছেন। এ নিয়ে আফসোস ছিলো না কখনও। তিনি শক্তি-সাহস জুগিয়েছেন। জনগণের সেবা করাকে লক্ষ্য মেনে নিজের চাওয়া-পাওয়া নিয়ে কখনও না ভাবার বিষয়টিও তুলে ধরেন শেখ হাসিনা। আমার জীবনের একটাই লক্ষ্য, রাজনীতির লক্ষ্য বাবার যে আকাঙ্ক্ষা তা পূরণ করা। সেই লক্ষ্যে নিয়ে রাষ্ট্র পরিচালনার যখন দায়িত্ব পেয়েছি। আমি মনে করি এটা জনগণকে সেবা করার একটা সুযোগ, জনগণের জন্য কাজ করার সুযোগ। এখানে নিজে কী পেলাম বা কী পেলাম না সেটা আমি চিন্তা করি না এবং করবোও না, করতে চাইও না। সন্তানদের শিক্ষার বিষয়ে পরিবারের সদস্যদের পরামর্শের প্রসঙ্গও টানেন তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, আমি ও আমার বোন রেহানা ছেলে-মেয়েদের একটা কথা শিখিয়েছি, তোমরা শুধু শিক্ষা গ্রহণ করবে শিক্ষাই বড় সম্পদ। নিজেদের জীবন নিজেরা গড়ে তুলবে।
আমরা এটা চিন্তা করি না, ছেলে-মেয়েদের জন্য কী রেখে গেলাম নিজের জন্য কী রেখে গেলাম। আজকে না থাকলে কালকে কী হবে- এই চিন্তাভাবনা আমরা করি না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, চিন্তাভাবনা একটাই- দেশের জন্য কতটুকু করতে পারলাম, মানুষের জন্য কতটুকু করতে পারলাম এবং মানুষকে কতটুকু দিতে পারলাম। এই একটাই আমার চিন্তাভাবনা। জনগণের চিন্তা করি বলেই জনগণই আমার শক্তি। মানুষের শক্তিতেই আমি শক্তি পাই। জনগণের ওপর আস্থা থেকে সামনে এগিয়ে যাওয়ার সাহস পওয়ার কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, “জনগণের ওপর আমার আস্থা আছে এবং আমি জানি তাদেরও আমার ওপর আস্থা আছে। এ আস্থা আছে বলেই সেখান থেকে আমি সাহস পাই। এসময় বিরোধী দল সরকারের সমালোচনার পাশাপাশি ভালো কাজের প্রশংসা করায় জাতীয় পার্টিকে সাধুবাদ দেন প্রধানমন্ত্রী।
সরকারপ্রধান বলেন, “সংসদে এখন একটা পরিবর্তন এসেছে। বিরোধী দল সরকারের সমালোচনা করছে; পাশাপাশি ভালো কাজ করলে তার প্রশংসাও করছে। বর্তমান সংসদ সেই দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে। মানুষ ভদ্রভাবে সংসদ দেখতে পারছে।
‘থ্রেট’ও করা হয়েছিল প্রধানমন্ত্রীকে: পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ন বন্ধের প্রসঙ্গ টেনে সেগুফতা ইয়াসমিনের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কেউ যদি ব্যক্তি স্বার্থের জন্যে দেশের সর্বনাশ করতে চায়, দেশের মানুষের স্বার্থ না দেখে তাহলে তাদের প্রতি করুণা করা ছাড়া আর কিছু থাকে না। এ প্রসঙ্গে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে মুহাম্মদ ইউনূস সরানোর সময়কার হুমকির কথাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। এটা ঠিক, কোনো ব্যক্তি বিশেষ- তার ব্যক্তিগত স্বার্থের কারণে অনেক সময় আমাকে থ্রেটও করা হয়েছিলো। বিশেষ এক ব্যক্তি, তার ব্যাপারে এমডির পদ না থাকলে পদ্মা সেতুর টাকা বন্ধ করা হবে- এটা সরাসরি বলাও হয়েছিলো। এ ধরনের বহু কথা আমাকে শুনতে হয়েছে।
গ্যাস সংকট কাটাবার চেষ্টা চলছে: গ্যাস সঙ্কট প্রসঙ্গে জাতীয় পার্টির সাংসদ জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর সম্পূরক প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী বলেন, শীতকালে সাধারণত গ্যাস জমে যায়, গ্যাসের ফ্লোও কমে যায়। সেজন্য সবসময়ই শীতকালে গ্যাসের সমস্যা দেখা যায়। শেখ হাসিনা বলেন, গ্যাস সংকট যে নেই তা বলব না সঙ্কট আছে। তবে এই সঙ্কট দূর করার জন্য আমরা পদক্ষেপ নিচ্ছি। রান্নার এলপি গ্যাস আমাদানির জন্য ট্যাক্স তুলে দেয়া হয়েছে। বিনিয়োগকারীরা যাতে আসে তার ব্যবস্থাও নিচ্ছি। এ প্রসঙ্গে গ্যাস অনুসন্ধানে তার সরকারের পদক্ষেপের কথা এবং আগের সরকারগুলোর যথাসময়ে যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়ার প্রসঙ্গও টানেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ ছাড়া অতীতে যারা ক্ষমতায় ছিলো তারা এ দিকে খুব একটা দৃষ্টি দেয়নি বলেই এই সমস্যা। যথেষ্ট পদক্ষেপ নেয়ার পরেও কিছু সমস্যা রয়েছে, তা স্বীকার করছি। আমরা অনুসন্ধানও চালিয়ে যাচ্ছি।
‘উন্নয়নের ৯০ শতাংশ নিজস্ব অর্থায়নে’: ফজিলাতুন নেসা বাপ্পির তারকা চিহ্নিত এক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের সুদৃঢ় নেতৃত্বে দেশের অর্থনীতি অনেক শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। দেশের উন্নয়নের ৯০ শতাংশ নিজস্ব অর্থায়নে হচ্ছে। ‘সঙ্কটের জাল ছিন্ন করে’ উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ এখন বিশ্বের নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *