১৮ দলের ৬০ ঘণ্টার হরতাল শুরু আজ

চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুরে পক্ষে-বিপক্ষে বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ

 

স্টাফ রিপোর্টার: নির্বাচনকালীন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের দাবি ও নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা হামলাসহ গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দল আহূত টানা ৬০ ঘণ্টার হরতাল আজ ভোর ৬টা থেকে শুরু হচ্ছে। শেষ হবে ৬ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টায়। এ হরতাল পালনের আহ্বান জানিয়ে মেরহরপুরে মিছিল ও প্রচারপত্র বিতরণসহ গণসংযোগ করা হয়। দর্শনায় বিএনপির একাধিক অংশ হরতালের পক্ষে পিকেটিং মিছিল করে। চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগ হরতালের বিরুদ্ধে মিছিল করেছে। মেহেরপুর ও গাংনীতেও আওয়ামী লীগ হরতাল প্রত্যাখ্যান করার আহ্বান জানিয়ে মিছিল বের করে আওয়ামী লীগ।

গত ৩০ অক্টোবর জোটের শরিক দলগুলোর মহাসচির পর্যায়ের বৈঠকে এ হরতাল পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। শনিবার বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক সাংবাদিক সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে হরতালের কর্মসূচি ঘোষণা করেন। গণমাধ্যমে ব্যবহার করা পরিবহন, অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, হাজিদের বহনে ব্যবহার করা পরিবহন হরতালের আওতামুক্ত থাকবে বলে জানান মীর্জা ফখরুল ইসলাম।

গতকাল সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে মিছিলটি বের হয়। চুয়াডাঙ্গা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিল শেষে একটি সংক্ষিপ্ত সমাবেশ জেলা বিএনপির কার্যালয়ে সামনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি এম জেনারেল ইসলাম। বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদুজ্জামান বুলা, থানা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. শামীম রোজা ডালিম, সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মন্টু,  পৌর বিএনপির সভাপতি সহিদুল ইসলাম রতন, সাধারণ সম্পাদক মজিবুল হক মালিক মজু প্রমুখ। চুয়াডাঙ্গা সরোজগঞ্জ ১৮ দল সরোজগঞ্জ বাজারে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সরোজগঞ্জ বাজার ১৮ দলের আহ্বায়ক কুতুবপুর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম নজু, চুয়াডাঙ্গা সদর থানা আমির আব্দুর রউফ মিয়া, কুতুবপুর ইউনিয়ন বিএনপির একাংশের সভাপতি নুরুল ইসলাম ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আ. মজিদ প্রমুখ। ডিঙ্গেদহ বাজারে গতকাল রোববার বিকেল ৫টায় বিক্ষোভ ও সমাবেশ করে শঙ্করচন্দ্র ও পদ্মবিলা ইউনিয়ন ১৮ দলীয় জোট। শঙ্করচন্দ্র ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্ব করেন। হরতালের প্রতিবাদে দামুড়হুদায় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ হরতাল বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিল শেষে সমাবেশে দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝন্টু, সদর ইউনিয়ন আ.লীগের যুগ্মসম্পাদক ইমতিয়াজ হোসেন, আ.লীগ নেতা জনাব আলী, উপজেলা যুবলীগ নেতা শফিউল কবির ইউসুফ, অ্যাড. আবু তালেব প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা হরতাল প্রত্যাক্ষাণের আহ্বান জানান।

গতকাল রোববার জীবননগর ডিগ্রি কলেজে বিক্ষোভ মিছিল করে কলেজ ছাত্রদল। মিছিল শেষে শহীদ মিনার চত্বরে বর্তমান সরকারের তীব্র সমালোচনা করে বক্তব্য রাখেন ছাত্রদল নেতা এখলাছুর রহমান রাসেল, রোমেল সরকার, নিলয়, পারভেজ প্রমুখ। এছাড়াও জাতীয়তাবাদী যুবদল বাবু খানের সমর্থকেরা হরতাল পালনের আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য রাখেন- যুবদল নেতা শফিউদ্দিন, ইউনুছ আলী, জসিম উদ্দিন প্রমুখ। দামুড়হুদায় উপজেলা সংগ্রাম কমিটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। গতকাল রোববার বিকেল ৫টায় দামুড়হুদা ব্রিজ থেকে উপজেলা বিএনপির সভাপতি লিয়াকত আলী শাহর নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে দামুড়হুদা চৌরাস্তার মোড় ঘুরে ব্রিজের সামনে শেষ হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি আবুল কাশেম, সহসভাপতি তোফাজ্জেল হোসেন, সহসভাপতি মোহাম্মদ আলী শাহ্ মিন্টু, সহসভাপতি আতিয়ার রহমান তরফদার, দামুড়হুদা ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি আব্দুর রহমান মালিথা, নতিপোতা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি কামরুজ্জামান টুনু প্রমুখ।

চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে সারাদেশে বিএনপি-জামায়াতের অহেতুক হরতালের প্রতিবাদে হরতালবিরোধী বিক্ষোভ মিছিল গতকাল বিকেল চারটার দিকে শহীদ হাসান চত্বর থেকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরীফ হোসেন দুদুর নেতৃত্বে বের হয়। হরতালবিরোধী বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কেদারগঞ্জ নতুন বাজারে এসে শেষ হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন- জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরীফ হোসেন দুদু। প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি আলী আহাম্মেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হাবিবুর রহমান, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক অ্যাড. শফি, চুয়াডাঙ্গা পৌর ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সোহরাব হোসেন, ৭ নং ওয়ার্ডে সাধারণ সম্পাদক ইছাহক আলী, সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবাইদুর রহমান চোধুরী জিপু, অ্যাড. ফিরোজ আহাম্মেদ, সদর থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লাল্টু, সাবেক কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বিপ্লব, সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহামন কালু, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি শরিফ উদ্দিন, মেহেদী, যুগ্ম সম্পাদক ফরিদ হোসেন, সাবেক দপ্তর সম্পাদক মতি, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ফরিদ আহম্মদ, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি জাবিদ, সাধারণ সম্পাদক সজল, সদর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক সুমন রেজা, কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জানিফ প্রমুখ।

চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির অর্থবিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমের উদ্যোগে ১৮ দলের ৬০ ঘণ্টার  হরতালের সমর্থনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। গতকাল রোববার চারটার দিকে চুয়াডাঙ্গা কোর্টমোড়স্থ দলীয় কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় দলীয় কার্যালয় এসে সমাবেশর আয়োজন করেন। সমাবেশে জেলা বিএনপির সাবেক দপ্তর সম্পাদক আইনুর হোসেন পচার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা মৎস্যজীবীদলের আহ্বায়ক আবু বক্কর সিদ্দিক বকুল, জেলা বিএনপির সহসভাপতি আরশেদ আলী কালু, জেলা কৃষকদলের সভাপতি হামিদুল হক নেতাজীসহ জেলা উপজেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

আলমডাঙ্গার গাংনী ইউনিয়ন বিএনপির আয়োজনে আসমানখালী হাইস্কুল মাঠে জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল বিকেল চারটায় অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন গাংনী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আইনাল হক। প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য জেলা বিএনপির একাংশের সভাপতি মুহা. অহিদুল ইসলাম বিশ্বাস। বিশেষ অতিথি ছিলেন- জেলা বিএনপির সহসভাপতি অ্যাড. এমএম শাহজাহান মুকুল, জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হক পল্টু, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মহিলা দলের সভানেত্রী রউফুন নাহার রিনা, আলমডাঙ্গা থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ভাংবাড়িয়া ইউপি চেয়াম্যান সানোয়ার হোসেন লাড্ডু, জেলা যুবদলের আহ্বায়ক খালিদ মাহমুদ মিল্টন, জেলা যুবদলের সদস্য সচিব সাইফুর রশিদ ঝন্টু, পৌর বিএনপির সহসভাপতি অ্যাড. মানি খন্দকার, পৌর যুবদলের আহ্বায়ক হাজি রবিউল মল্লিক, জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের আহ্বায়ক হাজি আব্দুল মান্নান, জেলা ওলামাদলের আহ্বায়ক মাওলানা মো. আনোয়ার হোসেন, জেলা ছাত্রদলের যুগ্মআহ্বায়ক শাজাহান খান, ছাত্রদল নেতা সুমন প্রমুখ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান অবৈধ হাসিনা সরকার যতো ষড়যন্ত্রই করুক কেন বাংলার মাটিতে কোনো ষড়যন্ত্রই আর বাস্তবায়ন করতে দেয়া হবে না। আজ সোমবার ভোর ৬টা থেকে ৬ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ৬০ ঘণ্টার হরতালে সকল নেতাকর্মী নিজ নিজ এলাকায় হরতালে মাঠে থেকে হরতাল সফল করার জন্য আহ্বান জানান। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন- গাংনী ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মামুন।

দর্শনা অফিস জানিয়েছে: দর্শনায় হরতালের সমর্থনে বিএনপির দুটি পক্ষ পৃথক পৃথকভাবে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। গতকাল রোববার বিকালে দর্শনা পুরাতান বাজার মোড় থেকে (জেলা বিএনপির একাংশের সহসভাপতি মোখলেসুর রহমান টিপু সমর্থিত) পক্ষ দামুড়হুদা উপজেলা ও দর্শনা পৌর বিএনপির একাংশের যৌথ উদ্যোগে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি দর্শনা হিরা সিনেমা হলের সামনে পৌঁছুলে পুলিশের বাধার মুখে ফিরে রেলবাজার বটতলা চত্বরে করেছে সংক্ষিপ্ত বিক্ষোভ সমাবেশ। পৌর বিএনপির সভাপতি রহম আলীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন- দামুড়হুদা উপজেলা বিএনপির একাংশের সভাপতি খাজা আবুল হাসনাত। আলোচনা করেন- দর্শনা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল ইসলাম খোকন, বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যান ইদ্রিস আলী, আব্দুল মান্নান, লুতফর রহমান, আ. কাদের, আব্দুল হান্নান, শহিদুল মোল্লা, মুহিত, যুবদল নেতা খেদু, সোহেল তরফদার, আসাদ, আনোয়ার, সাত্তার, ছাত্রদল নেতা রাজ, বিপ্লব, রুবেল, সুমন, প্রমুখ। একই সময় (কেন্দ্রীয় যুবদলনেতা মাহমুদ হাসান খান বাবু সমর্থিত) পক্ষে দর্শনা পৌর বিএনপির উদ্দোগে পুরাতন বাজার রেলগেট থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- দর্শনা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মহিদুল ইসলাম, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আহম্মদ আলী, জেলা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক সাবু তরফদার, বিএনপি নেতা ফরজ আলী, আজিজুল ইসলাম, রেজাউল, সেলিম, বদিয়ার, আশরাফুল, দর্শনা পৌর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নাহারুল ইসলাম শিক্ষক, যুবদল নেতা অপু, শহিদুল, মোতালেব, শরিফ, ছাত্রদলনেতা জাহান আলী, টুটুল শাহ, হাসু প্রমুখ।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবিতে ৪, ৫ ও ৬ নভেম্বর ৬০ ঘণ্টা হরতালের সমর্থনে মেহেরপুর পৌর এলাকায় গণসংযোগ করা হয়েছে। মেহেরপুর-১ আসনের সাবেক এমপি বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মাসুদ অরুন গণসংযোগে নেতৃত্ব দেন। গণসংযোগে উপস্থিত ছিলেন- পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক মাহবুবুর রহমান, অর্থসম্পাদক আরজুল্লাহ মাস্টার বাবলু, বিএনপি নেতা হাজি ফজলু খান, আব্দুল কাদের মাস্টার প্রমুখ। গণসংযোগকালে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দকে হরতাল সফল করার আহ্বান জানান।

অপরদিকে ১৮ দলীয় জোট নেতাকর্মীদের হত্যা-নির্যাতন ও গ্রেফতার বন্ধ ও নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে গতকাল সোমবার থেকে ৬০ ঘণ্টা হরতালের সমর্থনে মেহেরপুর শহরে গণসংযোগ করা হয়েছে। মেহেরপুর জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আনছার-উল হকের নেতৃত্বে শহরের শাহাজিপাড়াস্থ কার্যালয় থেকে নেতাকর্মীরা গণসংযোগ বের হন। গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন- পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক কালু, জেলা যুবদলের আহ্বায়ক জহুরুল ইসলাম বড় বাবু, যুগ্ম আহ্বায়ক প্রভাষক ফয়েজ মোহাম্মদ, পৌর যুবদলের সহসভাপতি রুহুল আমিন, জেলা ছাত্রদলের  সহসভাপতি মীর আলমগীর ইকবাল আলম, যুবদল নেতা একরামুল হক একা প্রমুখ। গণসংযোগকালে তারা হরতাল সফল করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, বিরোধীদলীয় জোটের ডাকা হরতাল বর্জনের আহ্বান জানিয়ে গতকাল রোববার রাত আটটার দিকে মেহেরপুর গাংনী উপজেলা শহরের বিক্ষোভ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ। সাবেক এমপি মকবুল হোসেনের উদ্যোগে হাসপাতাল বাজার থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বাসস্ট্যান্ড শহীদ রেজাউল চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় দোকানপাট খোলা রাখা ও যানবাহন চালানোর আহ্বান জানানো হয়। হরতাল ও বিএনপি-জামায়াত বিরোধী বিভিন্ন স্লোগান দেয়া হয়। উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগ নেতা গাংনী পৌর মেয়র আহম্মেদ আলী, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মজিরুল ইসলাম, যুবলীগ নেতা আনিচ্ছুজামান লুইচ, ধানখোলা ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাবু, উপজেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন লীগের সভাপতি বাবুল আক্তার, সহসভাপতি জিনারুল ইসলাম দিপু, বন্ধুবন্ধু স্মৃতি ক্লাবের সভাপতি আশিকুর রহমান আকাশ, সম্পাদক আসাদুজ্জামান মিলন, পৌর ছাত্রলীগের সম্পাদক ইমরান হাবীব ও কলেজ ছাত্রলীগের সম্পাদক উজ্জলসহ নেতৃবৃন্দ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *