স্ত্রীর সাথে কুশল বিনিময়ের কিছুক্ষণের মাথায় একই ফোনে এলো দুঃসংবাদ

খাইরুজ্জামান সেতু: যে সেলফোনে চুয়াডাঙ্গা ইসলামপাড়ার সোনিয়া খাতুনের সাথে তার স্বামীর কুশল বিনিময় হলো কিছুক্ষণ আগে, সেই ফোনেই ঘণ্টা দেড়েকের মাথায় খবর এলো স্বামী উজ্জ্বল গাজীপুরের কালিয়াকৈরের চন্দ্রা এলাকায় সিপি কারখানায় ট্রাক নিয়ে প্রবেশের সময় বিদ্যুতস্পৃষ্টে মারা গেছে। শুধু উজ্জ্বল একাই নয়, এ ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন আরো একজন। তবে তার বিস্তারিত পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি। সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ বলেছে, অপর নিহতের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জে।
উজ্জ্বল ছিলো ট্রাক হেলপার। সে চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার আসমানখালী সাহেবপুরের নূর ইসলামের ছেলে। কয়েক বছর আগে চুয়াডাঙ্গার ইসলামপাড়ার মেয়ে সোনিয়ার সাথে বিয়ে করে ঘরজামাই হিসেবেই বসবাস শুরু করে। মাঝে কিছুদিন আলমসাধু চালালেও কয়েকমাস আগে সে ট্রাকের হেলপারি শুরু করে। ওই ট্রাকের চালক মাসুমসহ কয়েকজন আহত হয়েছেন। মাসুম চুয়াডাঙ্গা সাতগাড়ির রতন আলীর ছেলে। তাকে গাজীপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে। খবর পেয়ে উজ্জ্বলের নিকটজনেরা গতকালই লাশ নিতে গাজীপুরের উদ্দেশে রওনা হন। লাশ বহনকরা অ্যাম্বুলেন্স আজ বৃহস্পতিবার ভোর নাগাদ চুয়াডাঙ্গায় পৌছুতে পারে।
আমাদের গাজীপুরের প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশে কালিয়াকৈরের চন্দ্রা এলাকায় সিপি বাংলাদেশ লিমিটেড নামের একটি কারখানা রয়েছে। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই কারখানা থেকে মালামাল নিতে একটি ট্রাক কারখানার দিকে যাচ্ছিলো। যাওয়ার পথে পল্লী বিদ্যুতের ঝুলন্ত তারের সাথে উজ্জ্বল মিয়া জড়িয়ে পড়েন। তাকে উদ্ধার করতে অপর এক শ্রমিক এগিয়ে গেলে তিনিও বিদ্যুতায়িত হন। এভাবে ঘটনাস্থলে দুজন মারা যান। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুজনের লাশ উদ্ধার করে। দুজনের মধ্যে একজনের নাম উজ্জ্বল নিশ্চিত হলেও অপর জনের নাম মাসুম বলে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে জানানো হয়। অবশ্য ওই ট্রাকের চালক মাসুমের বাড়ি সাতগাড়িতে গেলে তারা বলেছেন, চালক মাসুম অসুস্থ হয়ে চিকিৎসাধীন। তিনি মারা যাননি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *