স্কুলছাত্রের মৃত্যুর পর প্রশ্ন- ওর কাছে বিষ বিক্রি করলেন কোন দোকানি?

আলমডাঙ্গার পল্লিতে অভিমানী কিশোর আত্মঘাতী

স্টাফ রিপোর্টার: আলমডাঙ্গার পল্লি নাগদহ বলিয়ারপুরের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র জীবনের নিকট কোন দোকানি বিক্রি করেছেন বিষ? গতরাত ১০টার দিকে জীবনের মৃত্যুর পর এ প্রশ্নই বড় হয়ে দেখা দেয়। একই সাথে প্রশ্ন ওঠে, সমাজের আত্মহত্যার এ প্রবণতার শেষ কোথায়?
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার পল্লি নাগদহ দমদম বলিয়ারপুর মসজিদপাড়ার হাফিজুর রহমানের ছেলে জীবন (১২) গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র ছিলো। গতকাল সে স্কুলে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে মাঠে গিয়ে খেলায় মাতে। দুপুরে বাড়ি ফিরলে বকাবকি শুরু করে মা। এতে অভিমানী হয়ে সন্ধ্যায় কিশোর জীবন যায় গ্রামেরই দোকানে বিষ কিনতে। বিষ কিনে সে খেয়ে বসে। তাকে দ্রুত নেয়া হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে। চিকিৎসার একপর্যায়ে গতরাত ১০টার দিকে মারা যায় সে। রাতেই নিজ গ্রামে মৃতদেহ নেয়া হয়।
কিশোর জীবন ছিলে তিন-ভাইবোনের মধ্যে বড়। মায়ের ওপর অভিমানে অতোটুকু বয়সে আত্মঘাতী হওয়ার ঘটনাকে স্থানীয়দের অনেকেই যেমন সমাজের আত্মহত্যা প্রবণতাকে দায়ী করেছেন, তেমনই কেউ কেউ প্রশ্ন তুলে বলেছেন, অতোটুকু কিশোরের কাছে কোন দোকানি বিক্রি করেছেন বিষ বা কীটনাশক? তাকে ধরে আইনের আওতায় নেয়া উচিত।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *