সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ’র পতাকা বৈঠক : মিয়াজানকে ফেরত দেয়নি

দামুড়হুদার মুন্সিপুর সীমান্তে বাংলাদেশি গরু ব্যবসায়ীকে ধরে নিয়ে গেছে বিএসএফ

দর্শনা অফিস/কার্পাসডাঙ্গা প্রতিনিধি: দামুড়হুদার মুন্সিপুর সীমান্তে বাংলাদেশি নাগরিক গরুব্যবসায়ী মিয়াজানকে জোরপূর্বক ধরে নিয়ে গেছে বিএসএফ। মিয়াজানকে নির্যাতন শেষে ভারতীয় পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে বিএসএফ। বাংলাদেশি নাগরিককে ফেরত পেতে সীমান্তে বিএসএফ’র সাথে দু দফা পতাকা বৈঠক করেছে বিজিবি। পারিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের মুন্সিপুর মাঝপাড়ার ফকির মোহাম্মদের ছেলে মিয়াজান (৩৭) গতকাল বুধবার ভোর পাঁচটার দিকে সীমান্তের ৯২ নং মেন পিলারের নিকটবর্তী বাংলাদেশের অভ্যন্তরে মাঠে কৃষিকাজ করছিলেন। এ সময় ভারতের মহাখোলা বিএসএফ’র টহলদল বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে জোরপূর্বক মিয়াজানকে ধরে নিয়ে গেছে। অভিযোগ উঠেছে, মিয়াজানকে নির্যাতন শেষে অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগ তুলে গতকালই বেলা ১১টার দিকে বিএসএফ চাপড়া থানা পুলিশে সোপর্দ করেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন মুন্সিপুর বিজিবি ক্যাম্প ইনচার্জ নায়েক সুবেদার আলয় সিউস। মিয়াজানকে ফেরত চেয়ে বিজিবির পক্ষ থেকে বিএসএফকে পত্র দেয়া হয়েছে। গতকালই বেলা ১১টা ও বিকেল চারটার দিকে সীমান্তের ৯৩ নং মেন পিলারের নিকট বিজিবি-বিএসএফ’র দুটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। দুটি বৈঠকেই বিজিবির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন- মুজিবনগর বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার আবু তাহের, নায়েক সুবেদার আলয় সিউস, হাবিলদার জিল্লুর রহমান এবং বিএসএফ’র পক্ষে ছিলেন- চাপড়ার মহাখোলা বিএসএফ ক্যাম্পের ইন্সপেক্টর চানভির সিং, এসআই এনবি সিং ও এএসআই কুরবান আলী। তবে এ বেঠকে কোনো সুরাহা হয়নি। অভিযোগ উঠেছে, বিএসএফ’র হাতে আটককৃত মিয়াজান ভারতীয় গরুব্যবসায়ী। সে সীমান্তে গরু আনতে গিয়েই বিএসএফ’র হাতে আটক হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *